“তোমার পিরিয়ড হয়েছে! তুমি নিশ্চয়ই ক্লান্ত বোধ করছ” ছেলের কথায় মুগ্ধ মা

13
“তোমার পিরিয়ড হয়েছে! তুমি নিশ্চয়ই ক্লান্ত বোধ করছ

অনুপমা কুমার বিজয় আনন্দ, তিনি একজন আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি প্রাপ্ত চাইল্ড বার্থ এডুকেটর, প্রেগনেন্সি ফিটনেস এডুকেটর। সম্প্রতি নিজের সোশ্যাল মিডিয়ার পেজে অনুপমা তার এবং তার ছোট্ট ছেলের কথোপকথন তুলে ধরেছেন। এই কথোপকথন ছিল মহিলাদের ঋতুস্রাব সম্পর্কিত। একবিংশ শতাব্দীতে এসেও মহিলাদের ঋতুস্রাব অনেকের চোখেই ঠিক স্বাভাবিক নয়। যেখানে আর সকলে প্রকৃতির এই নিয়মকে চোখের আড়াল করতে চান, সেখানে ঋতুস্রাব নিয়ে ছোট্ট এক খুদের মনোভাব হয়তো সমাজের দৃষ্টিভঙ্গিও বদলাতে পারে।

অনুপমার ছেলে আহান। বয়স তার খুব বেশি নয়। তাকে বালকই বলা যেতে পারে। অনুপমা জানাচ্ছেন মাসের এক অপ্রত্যাশিত মুহূর্তে তার ঋতুস্রাব হয়। তার লেগিংসে রক্ত লেগে যায়। কাজের চাপ থাকায় তিনি সেই রক্তমাখা লেগিংস বাথরুমে ফেলে রেখে বেরিয়ে আসেন। তার ছেলে আহান কিছুক্ষণ পর তাকে বাথরুমে ডাকে। অনুপমা ধরেই নিয়েছিলেন ছেলে তাকে এই রক্তমাখা লেগিংস নিয়েই প্রশ্ন করবে। তবে এখন সেসব নিয়ে কোনও প্রশ্নই করেনি। এতে অনুপমাও বেশ অবাক হয়েছিলেন।

তখন অনুপমাই তাকে বলেন যে, ‘আমি ভেবেছিলাম তুমি আমাকে এই কাপড় দেখানোর জন্য ডেকেছো’। অপ্রাপ্তবয়স্ক আহান তাকে উত্তর দেয়, “হ্যাঁ আমার মনে হয়েছিল তোমার পিরিয়ড হয়েছে”। তবে অনুপমা ছেলেকে ‘সরি’ বলেন। আহান উত্তর দেয়, “তোমার পিরিয়ড হয়েছে। তুমি নিশ্চয়ই ক্লান্ত বোধ করছ। যখন সুস্থ হবে তখন কেচে নিও।” ছেলের উত্তর শুনে মুগ্ধ হয়ে যান মা।

অনুপমা এরপর লেখেন, যেখানে তাকে ছোটবেলা থেকেই শেখানো হয়েছে যে ঋতুচক্রের রক্তের দাগ যেন কোনোভাবেই পুরুষের নজরে না আসে, সেখানে তার ছোট্ট ছেলেও জানে যে ঋতুচক্র খুবই স্বাভাবিক বিষয়। ছেলেকে নিয়ে গর্বে মায়ের বুক ভরে যাচ্ছে। তিনি চান তার ছোট্ট ছেলের মতো সকলেই এই ভাবনা ভাবতে শিখুন। এই পোস্ট সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে গিয়েছে। ছোট্ট আহানের থেকে অনেক কিছুই শেখার আছে, মানছেন নেটিজেনরা।