ডিসেম্বরেও জাঁকিয়ে পরছে না শীত! বেলা বাড়তেই চড়ছে উষ্ণতার পারদ

9
ডিসেম্বরেও জাঁকিয়ে পরছে না শীত! বেলা বাড়তেই চড়ছে উষ্ণতার পারদ

আজ শুক্রবার। ডিসেম্বর মাসের চতুর্থ দিন। ডিসেম্বর মাস শুরু হয়ে গেলেও নিরাশ পশ্চিমবঙ্গবাসী। কারণ, সেই নভেম্বর মাস থেকে শীতের আমেজ শুরু হয়ে গেলেও জাঁকিয়ে শীত পড়তে এখনো বেশ কিছুদিন দেরি আছে বলেই জানাচ্ছে আবহাওয়া দপ্তর। সকালের দিকে ঠান্ডা আবহাওয়া অনুভূত হলেও বেলা বাড়তেই উষ্ণতার পারদ চড়ছে। অতএব চলতি সপ্তাহে শীতের প্রভাব টের পাওয়া যাবে না বলেই জানাচ্ছে মৌসম বিভাগ।

আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর সূত্রে খবর, শুক্রবার শহরাঞ্চলের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকবে ২৮.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। স্বাভাবিকের থেকে যা এক ডিগ্রি বেশি। এ দিনের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৬.৫ ডিগ্রী সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে। তবে কলকাতা শহরের তাপমাত্রা এদিন সর্বনিম্ন ১৫.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছিল। শহর এবং শহরতলীতে আপেক্ষিক আদ্রতার পরিমাণ সর্বোচ্চ ৯৯ শতাংশ এবং সর্বনিম্ন ৪২ শতাংশ থাকবে বলে জানানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, একদিকে পশ্চিমী ঝঞ্জা, অপরদিকে বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড়ের সম্মুখীন হতে হচ্ছে ভারতের উত্তর-পশ্চিম এবং দক্ষিণ অংশকে। ভারতের উত্তর পশ্চিম প্রান্ত দিয়ে পশ্চিমী ঝঞ্ঝা জম্বু কাশ্মীরের প্রবেশ করতে চলেছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দপ্তর। এর প্রভাবে উত্তর-পশ্চিম ভারতের রাজ্যগুলিতে তাপমাত্রা কিছুটা হলেও কমতে পারে। অপরদিকে তামিলনাড়ু এবং কেরলে ঘূর্ণিঝড় “বুরেভি” আছড়ে পড়তে চলেছে।

আবহাওয়া দপ্তর সূত্রে খবর, বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড়টি এই মুহূর্তে শ্রীলঙ্কায় অবস্থান করছে। এই ঘূর্ণিঝড় ক্রমশ নিজের শক্তি বাড়িয়ে শ্রীলংকা থেকে পশ্চিম এবং দক্ষিণ পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে ভারতের দক্ষিণ উপকূলীয় তামিলনাড়ু এবং কেরালাতে তান্ডব শুরু করবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এই ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে আগামী ২৪ ঘন্টা ভারতের দক্ষিণ উপকূলের দুই রাজ্যে ভারী বৃষ্টির সতর্কবার্তা জারি করা হয়েছে। প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের আশঙ্কা থেকে মৎস্যজীবীদের সমুদ্রে মাছ ধরতে যেতে নিষেধ করা হয়েছে।