শুরু হল শীতকাল! তাই নিজেকে সুস্থ রাখতে মেনে চলুন এই নিয়মগুলি

10
শুরু হল শীতকাল! তাই নিজেকে সুস্থ রাখতে মেনে চলুন এই নিয়মগুলি

আমরা কমবেশি শীতে ও গরমের বিভিন্ন রোগের প্রকোপে পরি। তবে তা সব থেকে বেশি হয় শীতে। আমাদের যে ইমিউনিটি সিস্টেম তা আমাদের সব সময় রক্ষা করছে, তবে শীতকালে রোগের সংক্রমণ বেশি থাকায় কখনো কখনো আমাদের ইমিউনিটি সিস্টেম অনেক দুর্বল হয়ে পড়ে তাই আমরা অসুস্থ হয়ে পড়ি।

আমাদের শরীর অনেক গুলি জিনিস নিয়ে তৈরি যেমন হাড়, ত্বক, টিস্যু, বিভিন্ন অঙ্গ প্রত্যঙ্গ। তবে এই সবটাকে সুস্থ রাখার দায়িত্ব ইমিউনিটি সিস্টেম এর। মূলত আমাদের শরীর কে বাইরের সব কিছু থেকে রক্ষা করে থাকে ত্বক। ঠান্ডা, গরম, দুষণ, জীবাণু এই সব কিছু থেকে ত্বককে রক্ষা করে একে ইনেট ইমিউন সিস্টেম ও বলে।

এছাড়া শ্বেতকণিকা হলো কমপ্লিমেন্ট সিস্টেম এর অন্যতম। ডেনড্রাইট সেল, কিলার টি সেল ইত্যাদি ইমিউন সিস্টেম এর অন্যতম।

জীবন যাত্রার পরিবর্তন নিয়ে বলতে গিয়ে ডা. পুষ্পিতা মন্ডল বলেছেন, আমাদের জীবন যাত্রা আগের মতো নেই। বাকি রোগ গুলির সাথে আমাদের বাড়তি ওজনের সাথে মোকাবিলা করতে হয়। সুস্থ থাকতে হলের সবার প্রথমে ওজন ঠিক রাখা প্রয়োজন।

এছাড়া স্ট্রেস অন্যতম কারণ আমাদের ওজন বৃদ্ধির, মানসিক চাপের জন্য আমাদের স্ট্রেস হরমোন এর নিঃসরণ বেড়ে যায় ফলে আমাদের শরীর রক্ষাকরি থাইমাস আর কার্যকারীতা কমে যায়। তাই মানসিক চাপ দূরে রাখতে হবে।

আপনি যাই করে নিন না কেন সারাদিনে ৮ ঘন্টা ঘুমানো জরুরি। ঘুম ঠিক করে না হলে আপনার ইমিউন সিস্টেম ঠিক করে কাজ করবে না এখনই দুর্বল হয়ে পড়বেন।

এই থেকে মুক্তির জন্য আপনাকে বাড়তি সময়ে গান শোনা, বই পড়া, আড্ডা দেওয়া, প্রিয় মানুষের সাথে সময় কাটানো ইত্যাদি করতে হবে।

তবে শ্বেতকণিকা আমাদের শরীরের অন্যতম প্রধান অংশ। এই হোয়াইট ব্লাডসেল বাড়াতে নিয়মিত আপনাকে ১৫ মিনিট ব্যায়াম করতে হবে। হাটতে হবে। পুষ্টিকর খাবার খেতে হবে।

এছাড়া ভিটামিন সি যুক্ত খাবার যেমন লেবু, পালং শাক ইত্যাদি খেতে হবে। এন্টিঅক্সিডেন্ট যুক্ত খাবার খেতে হবে। তবেই আপনি রোগের থেকে দশ হাত দূরে থাকতে পারবেন।