নারীপ্রধান ছবি গুলিকে অনলাইন রিলিজ় করেন কেন ছবির নির্মাতারা? জানুন কারন

10
নারীপ্রধান ছবি গুলিকে অনলাইন রিলিজ় করেন কেন ছবির নির্মাতারা? জানুন কারন

করোনা অতিমারির জেরে গত এক বছরে সিনেমা হলে রিলিজ় করেনি বিগ বাজেটের কোনও ছবি। অগত্যা ছোট ছবির নির্মাতারা অনলাইন রিলিজ়ের দিকেই ঝুঁকেছেন।

ওটিটি প্ল্যাটফর্ম কে এই পরিস্থিতিতে নারীকেন্দ্রিক ছবির জন্য নির্মাতারা বেছে নিচ্ছেন। কারণ নারীপ্রধান ছবি নিয়ে যতই হইচই হোক না কেন, সেই ছবির বক্স অফিসে বড় ধরনের সাফল্য লাভের সম্ভাবনা কম। মহিলাপ্রধান ছবির বাজেটও কম হয়। তাই মোটের উপর লাভ রেখে অনলাইনে ছেড়ে দিচ্ছেন প্রযোজকেরা। গত এক বছরে ‘শকুন্তলা দেবী’, জাহ্নবী কপূরের ‘গুঞ্জন সাক্সেনা’, পরিণীতি চোপড়ার ‘দ্য গার্ল অন দ্য ট্রেন’ ওটিটি-তে মুক্তি পেয়েছে।

বলিউড অভিনেত্রী বিদ্যা বালানের কোনও ছবিতে আইক্যান্ডি চরিত্র করতে বরাবরই আপত্তি ছিল। কম ছবি করবেন, কিন্তু এমন কাজ করবেন যেখানে তাঁকে ঘিরেই আবর্তিত হবে কাহিনি। সেই পথে চলে বিদ্যা তাঁর দর্শককে উপহার দিয়েছেন, ‘ইশকিয়া’, ‘দ্য ডার্টি পিকচার’, ‘কহানি’। এখনও তিনি সেই শর্তেই চলেন। এর জন্য হয়তো তাঁর ফিল্মোগ্রাফিতে ছবির সংখ্যা কম, কিন্তু নিজের অবস্থান থেকে সরেননি বিদ্যা।

এই দশকে নারীকেন্দ্রিক ছবিতে নির্মাতা-দর্শকের আগ্রহ তৈরির অন্যতম কারণ বিদ্যা বালন।তবে ২০১৭ থেকে বিদ্যার ছবির সংখ্যা আরও কমেছে। ‘তুমহারি সুলু’, ‘মিশন মঙ্গল’ এবং দক্ষিণী ছবি ‘এনটিআর…’। গত বছর বিদ্যার ‘শকুন্তলা দেবী’ ওটিটি-তে রিলিজ় করে। জুনের মাঝামাঝি তাঁর ‘শেরনি’ও অনলাইনে মুক্তি পাবে।

অন্যদিকে অভিনেত্রী তাপসী পান্নু, যাঁকে বলিষ্ঠ নারীচরিত্রে দেখা যায়। তাপসীর ‘হাসিন দিলরুবা’ অনলাইনে মুক্তি পাবে। শোনা যাচ্ছে ‘রশ্মি রকেট’ ছবিটিও ওটিটি রিলিজ় করবে, যেটির জন্য তাপসীকে অ্যাথলিটের মতো চেহারা তৈরি করতে হয়েেছ। কৃতী শ্যাননের ছবি ‘মিমি’ও অনলাইনে মুক্তি পাবে বলে খবর।

যে পরিস্থিতিতে বরুণ ধওয়নের ‘কুলি নাম্বার ওয়ান’ ওটিটি-তে মুক্তি পাচ্ছে বা সলমন খানের ‘রাধে’ পে পার ভিউ করে দেখতে হচ্ছে, সেখানে নারীকেন্দ্রিক এবং কম বাজেটের ছবির জন্য এই মুহূর্তে ভরসা হয়তো ওটিটি। এমনটাই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।