ফের নৃশংস ঘটনা ঘটলো কেরলে, চিতাবাঘ মেরে মাংস রান্না করে খাওয়ার অভিযোগ উঠলো পাঁচ জন দুষ্কৃতির বিরুদ্ধে

10
ফের নৃশংস ঘটনা ঘটলো কেরলে, চিতাবাঘ মেরে মাংস রান্না করে খাওয়ার অভিযোগ উঠলো পাঁচ জন দুষ্কৃতির বিরুদ্ধে

নৃশংসতার সকল মাত্রা ছাড়িয়ে যাচ্ছে “ঈশ্বরের আপন দেশ” কেরল। ক্রমেই বন্য প্রাণীর উপর মানুষের অত্যাচারের পীঠস্থান হয়ে উঠছে এই রাজ্যটি। কিছুদিন আগেই একটি গর্ভবতী হাতিকে বাজি ভর্তি আনারস খাইয়ে নৃশংসভাবে খুন করে কয়েক জন দুষ্কৃতী। সেই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে উত্তাল হয়ে উঠেছিল সোশ্যাল মিডিয়া। দোষীদের কঠোরতম শাস্তি প্রদানের দাবি করা হয়েছিল।

এবার সেই কেরলেই একটি ছয় বছর বয়সি চিতাবাঘকে মেরে তার মাংস রান্না করে খাওয়ার অভিযোগ উঠলো পাঁচ জন দুষ্কৃতির বিরুদ্ধে। কেরালার মানকুলাম এলাকায় ঘটেছে এই বর্বরোচিত ঘটনা। সূত্রের খবর, রীতিমতো ফাঁদ পেতে চিতাবাঘটিকে ধরা হয়। মানকুলাম এলাকা সংলগ্ন মুনিপাড়া জঙ্গল থেকে অন্তত ১০০ মিটার দূরত্বে স্যার পাতা হয়েছিল। ঐ বাঘটি সম্প্রতি বিনোদ পিকে নামক এক ব্যক্তির পোষ্য ছাগলকে মেরে ফেলে।

সেই রাগ থেকেই চিতাবাঘটিকে হত্যা করার পরিকল্পনা করে দুষ্কৃতীরা। এই দুষ্কর্মের সাথে জড়িতদের মধ্যে বিনোদ পিকে ছাড়াও ভিপি কুরিয়াকোসে, সালি কুঞ্জাপ্পান, সিএস বিনু এবং ভিন সেট নামক আরও চার ব্যক্তির নাম পাওয়া গিয়েছে। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে পুলিশ এলাকায় তল্লাশি চালিয়ে মৃত চিতাবাঘের দশ কেজি রান্না না হওয়া মাংস, দাঁত এবং ছাল উদ্ধার করেছে।

পুলিশ সূত্রে খবর, চিতাবাঘের রান্না করা মাংসও বেশ কিছুটা নদীর জলে ফেলে দিয়েছিল দুষ্কৃতীরা। ঘটনার সঙ্গে জড়িত ওই পাঁচ অভিযুক্তকেই গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ধৃতদের বিরুদ্ধে বন্যপ্রাণ নিরাপত্তা আইন ১৯৭২, অনুযায়ী মামলাও দায়ের করা হয়েছে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত বছরের নভেম্বর মাসেও কেরলের ইদ্দুকি জেলার মুন্নারে একইভাবে একটি চিতাবাঘকে হত্যা করা হয়। বন্য প্রাণীর উপর নৃশংস অত্যাচারের ঘটনা কেরলে ক্রমশ বেড়েই চলেছে।