মাঝ সমুদ্রে আটকে পরে যা অবস্থা হয়েছিল এই ব্যাক্তির

6
মাঝ সমুদ্রে আটকে পরে যা অবস্থা হয়েছিল এই ব্যাক্তির

সোশ্যাল মিডিয়া খুললেই বিভিন্ন প্রান্তের নানান রকম খবরা খবর আমাদের চোখের সামনে এসে যায়, নিমিষের মধ্যেই যেই খবর গুলি আমরা দেখে রীতিমতো অবাক হয়েও যাই ঠিক সেরকমই একটি খবরের কথা আমরা আজ এই প্রতিবেদনে আপনাদের বলব, যেটা শুনলে আপনারাও চমকে যাবেন। এক ব্যক্তি সমুদ্রের মাঝে আটকে পড়েছিল, প্রায় ২৪ দিন তিনি বেঁচে থাকার জন্য লড়াই করে গেছেন। বিষয় হলো তিনি শুধুমাত্র ম্যাগি মশলা খেয়ে ওই দিনগুলি কাটিয়েছেন।

খবর সূত্রে জানা যায় যে ডোমিনিকার এলভিস ফ্রাঙ্কোইস কত ডিসেম্বরে নেদারল্যান্ডস অ্যান্টিলেসের সেন্ট মার্টিনে নৌকা মেরামত করছিলেন, হঠাৎই একটি ঢেউ আসে যার ফলে নৌকাটি মাঝ সমুদ্রে চলে যায়। এরকম অবস্থাতেই এলভিস দিক নির্ণয় করতে পারেনি, যার ফলে তিনি আর সমুদ্র সৈকতে ফিরে আসতে পারেননি। বন্ধুদের সঙ্গে যোগাযোগ করার অনেক চেষ্টা করেছিল এলভিস, কিন্তু সিগন্যাল না থাকার জন্য সেই কাজ ও সম্ভব হয়নি।

তারপরে অসহায় অবস্থায় পড়ে এলভিস আগুন জ্বালিয়ে নানা রকম সংকেত দেওয়ার চেষ্টা করছিলেন দূর থেকে, কিন্তু সেটাতেও তিনি ব্যর্থ হন। অবশেষে সাহায্য পাওয়ার আশায় তার বড় নৌকায় হেলপ লিখেছিলেন, যাতে কোন বিমান সেটি দূর থেকে দেখতে পায়। এমনকি আয়নার সাহায্যে ও নানা রকম সংকেত দেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন, তিনি কিন্তু কোন কিছুই কাজে লাগেনি।

এরপরেই কনটেইনার জাহাজ তাকে উদ্ধার করে এবং নিয়ে আসে কার্টেজেনায় অবশেষে কলম্বিয়া নৌ বাহিনী সৈন্যরা তাকে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে এবং নিরাপদে তার বাড়িতে পাঠিয়ে দেন। এই ব্যাপারে এলভিস জানিয়েছেন তিনি যখন এইরকম অবস্থায় সমুদ্রে আটকেছিলেন তখন অনেক বড় বড় জাহাজ তিনি দেখতে পাচ্ছিলেন।

কিন্তু কোন জাহাজই তাকে দেখতে পাচ্ছিল না, এই গোটা ব্যাপারটি সম্পর্কে একটি সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে তিনি কথা বলেন এবং জানান যে ২৪ দিন ধরে তিনি স্থলভাগের কোন চিহ্ন দেখতে পাইনি। কোথায় ছিলাম এবং তিনি কি করবেন কিছুই বুঝতে পারছিলেন না। তিনি বারবার আসা হারিয়ে ফেলছিলেন কিন্তু সব সময় তার পরিবারের কথাই মনে আসত। শুধুমাত্র কে চাপ এবং ম্যাগি মশালা রসুনের গুঁড়ো এইসব খেয়েই ২৪ দিন কাটিয়েছেন।

জলের মধ্যে এই তিনটি মিশিয়ে তিনি ২৪ দিন ধরে খেয়ে বেঁচে ছিলেন। এলভিস জানান, তিনি বৃষ্টির জল কাপড়ের সংগ্রহ করে সেই জল অল্প অল্প খেয়ে দিন কাটিয়েছিলেন।