মহাকাশে নভোচারীরা কি কি খাবার খেতে পারবেন? জানতে চাইলো মার্কিন গবেষণা সংস্থা নাসা

25
মহাকাশে নভোচারীরা কি কি খাবার খেতে পারবেন? জানতে চাইলো মার্কিন গবেষণা সংস্থা নাসা

মহাকাশে গিয়ে নভোচারীরা কি কি খেতে পারবেন? কোন কোন খাবারের গুণমান দীর্ঘদিন পর্যন্ত মহাকাশে ভালো রাখা সম্ভব? এমন বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ মতামত দিতে পারলেই নাসার তরফ থেকে পুরস্কার তুলে দেওয়া হবে সাধারণ মানুষের হাতে। সম্প্রতি একটি রিপোর্টে প্রকাশ করা হয়েছে মহাকাশে নভোচারীরা কি কি খাবার খেতে পারবেন সেই বিষয়ে মতামত জানতে চেয়েছে মার্কিন গবেষণা সংস্থা নাসা।

তারা এমন প্রযুক্তির সন্ধান পেয়েছেন যেখানে সব থেকে কম সম্পদ ব্যবহার করে খাবার পাওয়া যাবে তবে বর্জ্য কম উৎপন্ন হবে। এমনিতেই নির্দিষ্ট সময় পর যে কোনও খাবারের গুণমান নষ্ট হয়ে যায়। নাসা সম্প্রতি মঙ্গল অভিযানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। যা করতে কার্যত কয়েক বছর সময় লেগে যাবে। এত দীর্ঘ সময় পর্যন্ত প্যাকেটজাত খাবার ব্যবহার করা সম্ভব নয়। এই কারণে নভোচারীদের স্বাস্থ্য ভালো রাখার জন্য অন্য উপায় খুঁজতে হবে। তাই মতামত চাওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞানীরা এমন খাবার তৈরির সিস্টেম ডেভলপ করার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন যা কার্যত তিন বছর মহাকাশে যেকোনো মহাকাশ অভিযানে 4 জন নভোচারীর জন্য যথেষ্ট পরিমাণে খাবার তৈরি করে দিতে পারবে। উৎপাদন, পরিবহন, ব্যবহারের পাশাপাশি বর্জ্য নিষ্কাশন অন্তর্ভুক্ত থাকবে এর মধ্যে। এই চ্যালেঞ্জের প্রথম পর্যায় গত বছর অক্টোবরে শেষ হয়েছে। নাসা ইতিমধ্যেই আঠারোটি দলকে তাদের উৎপাদনে খাদ্য উৎপাদন প্রযুক্তির ধারণা প্রদানের জন্য মোট 450 হাজার ডলার প্রদান করেছে।

খাবারের স্থিতিশীলতা গুণমান বজায় রেখে নিরাপদ গ্রহণযোগ্য সুস্বাদু পুষ্টিকর খাদ্য পণ্য তৈরি করতে পারে এবং এই কাজের যথেষ্ট সম্পদের প্রয়োজন পড়ে না, এমন প্রযুক্তির ধারণা দেওয়ার জন্য দশটি দলকে স্বীকৃতি দিয়েছে নাসা। নাসার তরফ থেকে 25 হাজার মার্কিন ডলার এবং সি এস এ এর তরফ থেকে 30 হাজার কানাডিয়ান ডলার পুরস্কার দেওয়া হয়েছে।