প্রচুর আতশবাজি একসাথে জ্বালানোর পর ঠিক কি অবস্থা হল গাড়ির? দেখুন

8
প্রচুর আতশবাজি একসাথে জ্বালানোর পর ঠিক কি অবস্থা হল গাড়ির? দেখুন

দীপাবলি উৎসব দেখতে দেখতে চলে এলো। চারিদিকে শুধু আলোর রোশনাই। ইতিমধ্যেই সবাই নিজেদের বাড়ির আলোয় ভরিয়ে তুলেছেন। বছরের এই নির্দিষ্ট সময়ে সব জায়গায় এই একটি ছবি পরিলক্ষিত হয়। তবে প্রত্যেক বছরের মতো আতশবাজি নিয়ে সতর্কতার বাণী শোনা যায় সর্বত্র। মুহূর্তের ভুলে হয়ে যেতে পারে বড় বিপদ। তবে আজ আপনাকে এমন একটি ভাইরাল ভিডিওর কথা বলবো যা শুনলে আপনার পিলে চমকে যাবে।

সম্প্রতি একদল যুবক তাদের গাড়িতে আতসবাজি লাগিয়ে অগ্নিসংযোগ করে দেন। প্রথমে অবিশ্বাস্য মনে হলেও কথাটি একেবারে সত্যি। দেশের জনপ্রিয় ইউটিউবার অমিত শর্মা এবং তার টিম এই ঘটনাটি ঘটিয়েছেন সম্প্রতি। এই চাঞ্চল্যকর ভিডিওটি রেকর্ড করেন তারা এবং ক্রেজি এক্স ওয়াই জেড নামে একটি ইউটিউব চ্যানেল মারফত সকলের সামনে নিয়ে আসেন এই ভিডিওটি। ইতিমধ্যে এই ভিডিওটি ভাইরাল হতে শুরু করে দিয়েছে।

রাজস্থানের আলওয়ারে বসবাসকারী youtube অমিত শর্মা দীপাবলির ঠিক প্রাক্কালে এই ভিডিওটি তৈরি করেন। বিপুল সংখ্যক আতশবাজি একসাথে জ্বালানোর পর ঠিক গাড়ির অবস্থা কেমন হবে সেটা দেখার জন্য এই ভিডিওটি তৈরি করেছিলেন তিনি। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে একটি ফাঁকা মাঠে তিনি গাড়ি চালিয়ে নিয়ে আসেন। এরপর গাড়ির চারিদিকে আতসবাজগুলিকে সাহায্যে লাগিয়ে দিতে থাকেন।

একসময় আতশবাজিতে রীতিমতো ঢাকা পড়ে যায় সম্পূর্ণ গাড়ি। সামনে কাঁচ ছাড়া সম্পূর্ণ গাড়িতে লাগানো হয় আতশবাজি। এরপর সন্ধ্যে নাগাদ অমিত রিমোটের মাধ্যমে গাড়িতে থাকা আতশবাজিতে অগ্নিসংযোগ করে দেন। একই সাথে জলতে দেখা যায় হাজার হাজার আতশবাজিকে। পুরো ঘটনাটাই ড্রোন এবং অন্যান্য ক্যামেরার মাধ্যমে দেখানো হয়েছিল।

দীর্ঘক্ষণ আতশবাজি জলার পর গাড়ির আসল রং রীতিমতো পাল্টে যেতে শুরু করে। তবে রং পরিবর্তন হলেও গাড়ির কোনো বড়োসড়ো ক্ষতি হয়নি।। গাড়ি সুন্দরভাবে চলেও। ভিডিওটি ঝড়ের গতিতে ভাইরাল হয়ে যেতে শুরু করে। পাশাপাশি একটি গাড়িকে যে আতশবাজি জ্বালানোর কাজে ব্যবহার করা যেতে পারে তা বিশ্বাস করছেন না নেট দুনিয়ার বাসিন্দারা। শুধুমাত্র রিভাস পাওয়ার জন্য এমন কাজ না করাই ভালো হতো বলেও ধারণা অনেকের।