বিজেপিতে যোগদানের পর কি জানালেন মিঠুন চক্রবর্তী! শুনে নিন

21
বিজেপিতে যোগদানের পর কি জানালেন মিঠুন চক্রবর্তী! শুনে নিন

গতকাল ছিল বিজেপির ব্রিগেড। বহু নামিদামি ব্যক্তি তাদের সেখানে উপস্থিত থাকতে দেখতে পেয়েছি আমরা। সেখানে উপস্থিত ছিলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তবে সব থেকে বেশি আকর্ষণীয় ঘটনা ছিল কালকে বিজেপির এই ব্রিগেডে উপস্থিত ছিলেন মহাগুরু মিঠুন চক্রবর্তী। বেশ কিছুদিন ধরেই তাকে নিয়ে জল্পনা-কল্পনা চলছিল। অবশেষে সমস্ত জল্পনার অবসান ঘটিয়ে বিজেপিতে যোগ দিলেন মিঠুন চক্রবর্তী।

কিছুদিন ধরেই শোনা যাচ্ছিল যে, মিঠুন চক্রবর্তী ব্রিগেডে উপস্থিত থাকলেও বিজেপিতে যোগ দেবেন না তবে মুম্বাই থেকে কলকাতাতে ফিরে আসার পর যখন ওনার সঙ্গে দেখা করেন বিজেপি রাষ্ট্র মহাসচিব কৈলাস বিজয়বর্গীয়, তখন সমস্ত ব্যাপারটা সকলের কাছে স্পষ্ট হয়ে যায়।

গতকাল বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের হাত ধরে তিনি বিজেপির পতাকা তুলে নেন নিজের হাতে। বিজেপিতে যোগ দেবার পর তিনি বলেন যে, আজকের দিনটা আমার কাছে একেবারে স্বপ্নের মত। আজ অনেক বড় নেতাদের সঙ্গে একই মঞ্চে দাঁড়িয়ে রয়েছি। কোনদিন এরকম হবে না ভাবতে পারিনি।

একইসঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম না করে তিনি বলেছেন যে, বাংলায় থাক আমরা সবাই বাঙ্গালী। আমি গরিবদের জন্য কাজ করতে চাই। সারা জীবনই এটি ছিল আমার স্বপ্ন। তবে আমি কোন জলঢোঁড়া সাপ নই, আমি হলাম জাত কোবরা। আমি যেটা বলি সেটাই করি।

সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে মিঠুন চক্রবর্তী বলেছেন যে, আমি তৃণমূল করতাম কিন্তু এখন ছেড়ে দিয়েছি। তবে কারোর উপরে আঙ্গুল তুলব না আমি। আমি একেবারেই বলবো না আমি ভুল করেছিলাম। আমার নিজের দিকে আঙুল তুলে বলব যে ভুলটা আমারই ছিল। আর বিজেপির কথায় আমি বলব যে, আমার স্বপ্ন রাজনীতি থেকে অনেকটাই বড়। বহু বছর ধরে আমি গরিবদের জন্য কিছু স্বপ্ন দেখেছিলাম। সেই স্বপ্ন পূরণের জন্য লড়াই করছি আমি। এই কারণে স্বপ্ন পূরণ করার সুযোগ পেলে আমি কখনোই ছেড়ে দিই না।

আমি মজদুর ইউনিয়ন এর চেয়ারম্যান ছিলাম প্রায় 25 বছর। কখনো কারো সমস্যা হলে আমি এগিয়ে যেতাম। কিন্তু নিজের পাবলিসিটি কখনোই আমি করিনা। আমি জানি আমি কি করছি। আমার হিসেবে এমন একটি দল বিজেপি, যারা গরিবদের জন্য কিছু করতে চাই। তাই আমি আপনাদের হাতে হাত মিলিয়ে গরিবদের জন্য নিজেকে উৎসর্গ করলাম। এতে আপনি আমাকে স্বার্থপর বলতে পারেন। কিন্তু আমি জানি আমি কি করছি।