অম্বুবাচীর সময় কি কি করলে শুভ ফল পাওয়া যায়? জেনে নিন

26
অম্বুবাচীর সময় কি কি করলে শুভ ফল পাওয়া যায়? জেনে নিন

আষাঢ় মাসের মৃগশিরা নক্ষত্রের তৃতীয় পদের শেষ ও চতুর্থ পদের শুরু থেকে তিন দিন অম্বুবাচী আচার বা ব্রত পালন করা হয়। বাংলায় একটি প্রবাদ বাক্য এর প্রচলন আছে কিসের বার, কিসের তিথি, আষাঢ়ের সাত অম্বুবাচী। আষাঢ়ের সাত তারিখ থেকে এই অম্বুবাচী আরম্ভ হয়। জ্যোতিষ শাস্ত্র মতে সূর্য যে বারে ও সময়ে মিথুন রাশিতে যায় ঠিক তার পরবর্তী বারের সেই সময়ের তিথি হল অম্বুবাচীর। অম্বুবাচী হলো হিন্দু ধর্মের একটি ব্রত।

পূর্ণ বয়স্ক মহিলারা যেমন ঋতুকালের পরে সন্তান ধারণে সক্ষম হন, ঠিক তেমন ধরিত্রী মাতাও অম্বুবাচীর ধনধান্যে সরষে পূর্ণ হয়ে ওঠেন। প্রচলিত ধারণা অনুযায়ী, এই সময় কৃষিকার্য বন্ধ রাখা হয়। জমিতে কোনও রকম লাঙ্গল চালানো, জমি খোঁড়া বা সমস্ত ধরনের কৃষি কাজ থেকে বিরত থাকা হয়। সন্ন্যাসী এবং বিধবারা এই তিন দিন বিশেষ ভাবে পালন করে থাকেন। কিছু নিয়ম আছে যে নিয়মগুলি এই সময় পালন করলে শুভ ফল হতে পারে। চলুন জেনে নেওয়া যাক সেই সমস্ত নিয়ম গুলি।

১) এই সময় ইষ্ট মন্ত্র জপ করুন তাতে শুভ ফল লাভ হবে।

২) গুরু মহিলাই হোক আর পুরুষই হোক এই সময় সমস্ত গুরুর চরণে পূজা করা যাবে।

৩) বাড়ির পূজার সিংহাসনে প্রতিষ্ঠারত সকল দেবী মূর্তি কে এই সময় লাল কাপড়ে মুড়ে রাখা উচিত।

৪) অম্বুবাচী চলাকালীন সময়ে আম দুধ পান করলে সাপের ধর্ষণের হাত থেকে রক্ষা পাওয়া যায়।

৫) অম্বুবাচী শুরু থেকে সাত দিন কোন জায়গায় বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া যাওয়া উচিত নয়।

৬) এই সময় সমস্ত শুভ কাজ বন্ধ রাখা উচিত।

৭) কোন জমি বা বাড়ি ক্রয় বা চাষাবাদের কাজ করা উচিত নয়। কোন গাছ থেকে একটা পাতাও ছেঁড়া উচিত নয় এই সময়ে।