কি অদ্ভুত প্রথা! মৃত মানুষকে কবর থেকে তুলে এনে সময় কাটান পরিবার

35
কি অদ্ভুত প্রথা! মৃত মানুষকে কবর থেকে তুলে এনে সময় কাটান পরিবার

বিভিন্ন ধর্মাবলম্বী মানুষদের মধ্যে বিভিন্নভাবে মৃতের সৎকার করা হয়। কোথাও পুড়িয়ে দিয়েছে কোথাও বা কবর দিয়ে প্রিয় মানুষকে চিরদিনের জন্য বিদায় জানানো হয়। মিশরের ইতিহাস পড়লে জানা যাবে যে, তারা বিশ্বাস করতেন যে, প্রিয়জন মৃত্যুর পর একটি অন্য জগতে বাস করে। তাই তারা প্রিয়জনের মৃতদেহকে ওষুধ লাগিয়ে তার সঙ্গে ব্যবহার্য সমস্ত জিনিস দিয়ে কবর দিতেন। কিন্তু কবর থেকে নিকটজনের মৃতদেহ তুলে নিয়ে এসে তাদের সঙ্গে ছবি তোলার সময় কাটানো এমন কথা শুনলে যে কারো অদ্ভুত মনে হতে পারে। ইন্দোনেশিয়ার তরজা উপজাতির কাছে এটা খুবই স্বাভাবিক বিষয়। দীর্ঘ দিন ধরে তর্যা সম্প্রদায়ের মানুষ এই প্রথা মেনে আসছেন। প্রতিবছর বর্ষাকাল এলে তারা তাদের প্রিয় জনের মৃতদেহ কবর থেকে তুলে নিয়ে আসেন।

সেই মৃত মানুষদের দিয়ে পুড়িয়ে দেওয়া হয় নতুন পোশাক। বেঁচে থাকাকালীন তারা যে সমস্ত জিনিস খেতে ভালো বাসতেন, সেই সমস্ত জিনিস সাজিয়ে দেওয়া হয় তাদের সামনে। শুধু তাই নয় মৃত এই কঙ্কালের সঙ্গে পরিবারের জীবিত সদস্যরা ছবিও তোলেন। মৃত মানুষদের কখনোই হাতছাড়া করতে চান না তর্যা সম্প্রদায়ের মানুষেরা। তারা বিশ্বাস করেন যে তাদের সমস্ত সুখ দুঃখের সঙ্গী হয়ে আছেন তাদের পরিবারের মৃত সদস্যরা। তাই প্রতিবছর একটি নির্দিষ্ট সময়ে তাদের পরিবারের সদস্যদের নিজেদের সুখ দুঃখের সঙ্গে শামিল করতে এই পন্থা তারা বেছে নিয়েছেন।

বর্তমানে ইন্দোনেশিয়ার এই উপজাতির মোট জনসংখ্যা প্রায় ১০লক্ষ। দক্ষিণ সুলাওয়েসি প্রদেশের তারা বসবাস করেন। তাদের মধ্যে আরও একটি চল আছে, তারা তাদের মৃত আত্মীয়দের সমাধি দেন বাড়ির মধ্যে কিংবা সংলগ্ন জমিতেই। তারা তাদের মৃত ব্যক্তিদের নিজেদের থেকে কখনোই দূর করতে চান না। বছরের পর বছর এই সময় দেহগুলি কে সাজিয়ে নিয়ে অনুষ্ঠান করে ফের আর একবার সমাধি দেওয়া হয়। ওই সম্প্রদায়ের মানুষদের কাছে এই অনুষ্ঠান মা নে নে বলে পরিচিত।

এই উপজাতির পরিবারগুলির কাছে এই অনুষ্ঠান অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করা হয়। নতুন প্রজন্মের পারিবারিক মূল্যবোধ নতুনভাবে গড়ে ওঠে এই অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে। এই সময়ে মৃত ব্যক্তিদের কবর থেকে তুলে নিয়ে এসে তাদের সাথে জীবিত মানুষদের মতোই আচরণ করা হয়। সপরিবারে তাদের সঙ্গে খাওয়া-দাওয়া, নতুন পোশাক পরিয়ে দেওয়া, তাদের সঙ্গে বসে এক টেবিলে খাওয়া, এমনকি তাদের সঙ্গে কথাও বলেন জীবিত সদস্যরা। তর্যা সম্প্রদায়ের মানুষেরা কখনোই তাদের মৃত আত্মীয় বা পরিবারের মানুষদের প্রথাগত সৎকার করে না। কখনো এক সপ্তাহ বা কখনো এক মাস ধরে বাড়িতেই তাদের মৃতদেহ গুলো মমি করে রাখা হয়। পরে একটি সামাজিক অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে তাদের সমাধিস্থ করা হয়।