বিগত ছয় মাসে দেশে বেকারত্বের হার সর্বোচ্চ! চাঞ্চল্যকর রিপোর্ট প্রকাশ করল সিএমআইই

13
বিগত ছয় মাসে দেশে বেকারত্বের হার সর্বোচ্চ! চাঞ্চল্যকর রিপোর্ট প্রকাশ করল সিএমআইই

দেশের বেকারত্বের গ্রাফ ক্রমশ ঊর্ধ্বমুখী। ক্রমবর্ধমান বেকারত্বের হার রীতিমতো অস্বস্তিতে ফেলে দিচ্ছে মোদি সরকারকে। করোনার আগে এমনিতেও দেশে বেকারত্বের সমস্যা বাড়ছিলো। তবে করোনা আসার পর সমস্যা আরো বেড়েছে। বিশেষত গত জুন মাস থেকে নভেম্বর মাস পর্যন্ত বিগত ছয় মাসে দেশে বেকারত্বের হার সর্বোচ্চ স্থানে পৌঁছে গিয়েছে। এই মুহূর্তে বেকারত্বের হার ৭.৮ শতাংশে পৌঁছিয়েছে।

সেন্টার ফর মনিটরিং ইন্ডিয়ান ইকোনমি তথা সিএমআইই এর তরফ থেকে গত ২২শে নভেম্বর যে সমীক্ষা করা হয়েছে, তার রিপোর্ট থেকেই এই চাঞ্চল্যকর তথ্য পাওয়া গিয়েছে। রিপোর্ট বলছে, করোনাকালে লকডাউনের জেরে বহু মানুষ চাকরি খুইয়েছেন। গত জুন মাসে যখন ধীরে ধীরে লকডাউন তোলা হচ্ছিল তখন বেকারত্বের হার কিছুটা হলেও কমেছিল। পরে আবারো তা বাড়তে শুরু করে।

সিএমআইই এর রিপোর্ট অনুযায়ী, ২৫শে অক্টোবরের পর থেকেই বেকারত্বের হার আরো বাড়তে শুরু করে। গত ২২শে নভেম্বর পর্যন্ত দেশে নিয়োগের হার ছিল ৩৬.২ শতাংশ। উল্লেখ্য, ২০১৯-২০ অর্থবর্ষে নিয়োগের হার ছিল ৩৯.৪ শতাংশ। চলতি বছরের এপ্রিল মাসেই তা ২৭.২ শতাংশে নেমে দাঁড়ায়। সমীক্ষার রিপোর্ট অনুযায়ী, করোনাকালে ১.৮ কোটি মানুষ কাজ হারিয়েছেন।

বেকারত্বের এই সমস্যা দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের উপর সরাসরি প্রভাব ফেলছে। রিজার্ভ ব্যাংকের তরফ থেকে জানানো হয়েছিল গত এপ্রিল থেকে জুন মাসের ত্রৈমাসিকে ভারতের অর্থনৈতিক সংকোচন হয়েছিল প্রায় ২৪ শতাংশ। সেপ্টেম্বর মাসে তা ৮.৬ শতাংশে নেমে এসেছে।