চুরি যাচ্ছে অন্তর্বাস! দুষ্কৃতীদের উপদ্রবে নাজেহাল হোস্টেলের আবাসিকরা

31
চুরি যাচ্ছে অন্তর্বাস! দুষ্কৃতীদের উপদ্রবে নাজেহাল হোস্টেলের আবাসিকরা

মেখলিগঞ্জ মহকুমা হাসপাতালের নার্সিং হোস্টেলের আবাসিকরা সম্প্রতি বহিরাগত কিছু যুবকের দৌরাত্ম্যে নাজেহাল হয়ে পড়েছেন। রোজ রোজ নার্সদের অন্তর্বাস চুরি করছে দুষ্কৃতীরা। বাইরের বারান্দায় কিংবা ছাদে অন্তর্বাস শুকোতে দিলেই তারপর তার আর কোনো খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না। শুধু তাই নয়, যখন-তখন হস্টেলে ঢিল ছোঁড়া হচ্ছে। দিনে-রাতে দুষ্কৃতীদের উপদ্রবে নাজেহাল হয়ে পড়েছেন ওই হোস্টেলের আবাসিকরা।

আবাসিকদের অভিযোগ বারংবার কর্তৃপক্ষের কাছে এই নিয়ে অভিযোগ জানালেও বিশেষ কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি। ইতিপূর্বে তারা বহুবার হোস্টেলের আনাচে-কানাচে সিসিটিভি লাগানোর আবেদন জানিয়েছেন। কিন্তু হোষ্টেল কর্তৃপক্ষ সেই আবেদনে কান দেয়নি। এদিকে দুষ্কৃতীদের উপদ্রব ক্রমশ বেড়েই চলেছে। ফলে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন তারা। পরিস্থিতি এমনই যে রাতে বাথরুম যেতেও ভয় পাচ্ছেন আবাসিকরা।

বাইরে থেকে যখন-তখন উড়ে আসছে ঢিল, জানলায় টোকা মারছে দুষ্কৃতীরা, তাদের দেখে সিটিও মারছে। অনেক দুষ্কৃতী তো আবার হোস্টেলের পাঁচিল টপকে ভেতরে প্রবেশ করছে। ছাদে উঠে আসছে। অভিযোগ পেয়ে নড়েচড়ে বসেছে মেখলিগঞ্জের প্রশাসন। মেখলিগঞ্জ মহকুমা হাসপাতালে উপস্থিত হলেন শিক্ষা দপ্তরের প্রতিমন্ত্রী পরেশ অধিকারী। নার্সিং হোস্টেল ঘুরেও দেখলেন তিনি।

এদিন স্কুল শিক্ষা দফতরের প্রতিমন্ত্রী তথা মেখলিগঞ্জ মহকুমা হাসপাতালের রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যান পরেশ চন্দ্র অধিকারী ও হাসপাতাল সুপার কাশিনাথ পাঁজা হোস্টেলে উপস্থিত হয়ে সেখানকার আবাসিকদের সঙ্গে কথা বলেছেন। নার্সদের নিরাপত্তার দিকটি খতিয়ে দেখার জন্য হোস্টেল সুপারকে নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। পাশাপাশি এই ধরনের ঘটনা রোখার জন্য পার্শ্ববর্তী থানাকেও তিনি নির্দেশ দিয়েছেন।