কোনো অবস্থাতেই “টিকটক” কোম্পানিকে বিক্রি করা হবে না আমেরিকার কাছে, স্পষ্ট জানাল বেজিং

7
কোনো অবস্থাতেই

আমেরিকা যদি চায়, সেদেশে “টিকটক” ব্যান করে দিতে পারে। তবে কোনো অবস্থাতেই আমেরিকার কাছে “টিকটক” কোম্পানিকে বিক্রি করা হবে না। শুক্রবার বেজিংয়ে তরফ থেকে একথা স্পষ্ট করে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। তবে “টিকটক” সংস্থার তরফ থেকে অবশ্য জানানো হয়েছে, বেইজিংয়ের এমনতর কোনো পরিকল্পনার কথা তাদের জানা নেই। বিশিষ্ট সংবাদ সংস্থা “রয়টার্স” এর রিপোর্ট থেকে এই তথ্য পাওয়া গেছে।

উল্লেখ্য, লাদাখে ভারত-চীন সীমান্ত সংঘর্ষের আবহে জাতীয় সুরক্ষার প্রশ্ন তুলে ভারতে প্রথম দফায় “টিকটক” সহ ৫৯টি চীনা অ্যাপ বাতিল করে দেওয়া হয়। এমনকি আমেরিকার তরফ থেকেও, জাতীয় সুরক্ষার প্রশ্ন তুলে সে দেশে “টিকটক” বাতিল করার নির্দেশ দেওয়া হয়। এরপর ব্যবসার খাতিরে চীনের কাছ থেকে জনপ্রিয় ভিডিও মেকিং অ্যাপ “টিকটক” সংস্থাটিকেই কিনে নিতে চেয়েছিল আমেরিকা।

এদিকে “টিকটক” কোম্পানি কিনে নেওয়ার জন্য টিকটকের মালিকানাধীন সংস্থা “বাইটডান্স”এর সাথে আলোচনায় বসে আমেরিকার বিখ্যাত কোম্পানি “মাইক্রোসফট”। তবে পরবর্তী ক্ষেত্রে মাইক্রোসফটের তরফ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়, এই মুহূর্তেই “টিকটক” কেনার কোনো পরিকল্পনা নেই তাদের। একই উদ্দেশ্যে অপর এক আমেরিকান সংস্থা “Oracle” সহ আরো বিভিন্ন কোম্পানির সাথে আলোচনায় বসে “বাইটডান্স”। আপাতত, “টিকটক” কেনার ব্যাপারে কোনো সংস্থাই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেনি।

উল্লেখ্য, ভারত এবং আমেরিকার বাজার হারিয়ে “টিকটক” সংস্থার কিন্তু বেজায় লোকসান হয়েছে। চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে আমেরিকায় “টিকটক” এর মার্কেট শেয়ার ছিল ৭৬ শতাংশ। কিন্তু “টিক টক” ব্যান প্রসঙ্গে টানাপোড়েনের দরুন গত আগস্টে তা ২০ শতাংশ কমে এসেছে। চিনের বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র ঝা লিজিয়ানের দাবি, জাতীয় সুরক্ষার দোহাই দিয়ে চীনের সংস্থা গুলির ব্যবসার ক্ষতি করতে চাইছে আমেরিকা। তিনি আরো জানিয়েছেন, প্রযুক্তিগত রফতানির ক্ষেত্রে এবার থেকে বেশ কিছু বিধিনিষেধ লাগু করার পরিকল্পনা করছে চীনা প্রশাসন।