মুর্শিদাবাদে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন করতে গিয়ে আহত দুই ছাত্র

12
মুর্শিদাবাদে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন করতে গিয়ে আহত দুই ছাত্র

মাধ্যমিকের ফল প্রকাশের পর দেখা গিয়েছে যে ১০০% পরীক্ষার্থীকেই পাস করানো হয়েছে। যা নিয়ে অবশ্য সমালোচনার সম্মুখীন হতে হয়েছিল পর্ষদকে। তবে উচ্চমাধ্যমিকের ক্ষেত্রেও আশা করা হয়েছিল যে এবারে হয়তো ১০০ শতাংশ উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীকেও একই ভাবে পাশ করিয়ে দেওয়া হবে। তবে ফল প্রকাশের পর দেখা গেল যে ৯৭ শতাংশ পরীক্ষার্থী কেবল পাস করেছেন। বাকি ৩ শতাংশকে ফেল করিয়ে দেওয়া হয়েছে।

এই নিয়ে ফেল করা পরীক্ষার্থী এবং তাদের অভিভাবকেরা বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেছেন। তাদের দাবি, পরীক্ষা ছাড়াই যেখানে ছাত্র-ছাত্রীদের ফল প্রকাশ করা হয়েছে সেখানে তাদের এইভাবে ফেল করিয়ে দেওয়া হয় কিভাবে? আবার অনেক ছাত্র-ছাত্রীই আশানুরূপ ফল করতে না পেরে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছেন। মুর্শিদাবাদের হরিহরপাড়া ও মহিষমারা এলাকায় বিক্ষোভ প্রদর্শন করতে গিয়ে রীতীমতো আহত হতে হলো দুই ছাত্রকে।

সরবপুর উচ্চ মাধ্যমিক স্কুল থেকে এবার পরীক্ষার্থী ছিলেন ১৮০ জন। ১০০ জন পরীক্ষার্থী পাশ করেছে। যারা পাস করেছেন তাদের ফলও আশানুরূপ হয়নি বলে দাবি করছেন তারা। শনিবার ছাত্র-ছাত্রীদের স্কুলে ডেকেছিলেন প্রধান শিক্ষক। প্রধান শিক্ষক তাদের ভবিষ্যতে আরও ভালোভাবে পড়াশোনা করার পরামর্শ দেন। তবে এতে হিতে বিপরীত হয়। টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন করতে শুরু করে ছাত্ররা। আর তা করতে গিয়েই সেই আগুন গায়ে ছিটকে এসে আহত হন দুজন ছাত্র।

বসির শেখ নামের এক ছাত্রকে হরিহারপাড়া হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়েছে। মুর্শিদাবাদের আরেকটি স্কুল মহিষমারার ঘোড়ামারা উচ্চ বিদ্যালয়েও ফল প্রকাশের পর একই পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে। ১৬১ জন ছাত্র-ছাত্রীর মধ্যে কেবল পাস করানো হয়েছে ৭৪ জনকে। এই নিয়ে শিক্ষক-শিক্ষিকাদের উপর আক্রমণাত্মক হয়ে ওঠে ছাত্রছাত্রীরা। প্রধান শিক্ষককে ঘরের মধ্যে তালা বন্ধ করে রাখা হয়। পরে অবশ্য খবর পেয়ে ভিডিও ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার চেষ্টা করেছেন।