ভারত সরকারের পদ্মশ্রী পুরষ্কার পাচ্ছেন বাংলাদেশের দুই বিশিষ্ট ব্যক্তি

8
ভারত সরকারের পদ্মশ্রী পুরষ্কার পাচ্ছেন বাংলাদেশের দুই বিশিষ্ট ব্যক্তি

অন্যান্য বারের মতো এবারেও প্রজাতন্ত্র দিবসের আগে কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে এ বছরের পদ্মশ্রী, পদ্মবিভূষণ পুরস্কার প্রাপকদের নামের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। এই তালিকাটা অন্যান্যবারের মতোই বেশ বড়। দেশ-বিদেশের বহু ব্যক্তিকে এই সম্মানে ভূষিত করা হয়ে থাকে। এবারেও তার অন্যথা হয়নি। চলতি বছরে বাংলাদেশের দুই গুণী ব্যক্তিকেও পদ্ম পুরস্কার এবং সম্মানে ভূষিত করা হয়েছে।

এবছর এনআরআই অর্থাৎ বিদেশি নাগরিক বিভাগে ১০ জন পদ্ম পুরস্কার পেয়েছেন। এদের মধ্যে অন্যতম হলেন দুই বাংলাদেশি নাগরিক সনজীদা খাতুন এবং কাজী সাজ্জাদ আলী জহির। সনজীদা খাতুন বাংলাদেশের অন্যতম সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব এবং কাজী সাজ্জাদ আলী জহির বাংলাদেশের লেফটেন্যান্ট কর্নেল। ৮৮ বছর বয়সি সনজীদা খাতুন জাতীয় রবীন্দ্র সংগীত সম্মিলন পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য।

রবীন্দ্রসঙ্গীতশিল্পী, লেখক, গবেষক, সংগঠক, সঙ্গীতজ্ঞ ও শিক্ষিকা সনজীদা খাতুন বাংলাদেশের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান “ছায়ানট” এর প্রতিষ্ঠাতা, সদস্য এবং বর্তমান সভাপতি হিসেবে নিযুক্ত আছেন। শান্তিনিকেতন থেকে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভের পর তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের শিক্ষক হিসেবে নিযুক্ত হন।

লেফটেন্যান্ট কর্নেল (অব.) কাজী সাজ্জাদ আলী জহির বাংলাদেশের স্বাধীনতাযুদ্ধের এক অন্যতম বীর মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন। বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে তাঁর সাহসিকতার জন্য তিনি বাংলাদেশ সরকারের তরফ থেকে “বীরপ্রতীক” খেতাব পেয়েছেন। ফৌজদারহাট ক্যাডেট কলেজ থেকে এসএসসি ও এইচএসসি পাস করে ১৯৬৯ সালে তিনি পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর অন্তর্ভুক্ত হন।