প্রেমিকের কাছে প্রতারিত হয়ে নিজেদের সংসার গড়ে তোলেন দুই প্রেমিকা

9
প্রেমিকের কাছে প্রতারিত হয়ে নিজেদের সংসার গড়ে তোলেন দুই প্রেমিকা

দুই নারীর সঙ্গেই চুটিয়ে প্রেম করার পর দুইজনের সঙ্গেই বিশ্বাসঘাতকতা করেন এক ব্যক্তি। দুজনের কারোর সঙ্গেই সংসার করতে আগ্রহী ছিলেন না ওই ব্যক্তি। শেষমেষ প্রতারিত দুই প্রেমিকা লিয়ান এবং এমা ডেভিস একে অপরের প্রেমে পড়েন এবং নিজেদের সংসার গড়ে তোলেন।

গল্পটা অবাক লাগলেও চলুন জেনে নেওয়া যাক আসল ঘটনাটা কি! ঘটনাটি ঘটেছে লন্ডনে। প্রতারণার ঘটনা জানাজানি হতেই এক দিন কৌতূহলবশত এমার সঙ্গে দেখা করেন লিয়ান। তারা প্রথম দেখাতেই একে অপরের প্রেমে পড়েন এবং বিয়েও করে ফেলেন। আর এখন তারা এক সন্তানের মা-ও।

২০১৮ সালে লিয়ান জানতে পারেন, তার প্রেমিক একাধিক মেয়ের সঙ্গে সম্পর্কে জড়িত। তখন সেই সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসেন এমা। এরপর পুরনো প্রেমিকের আর এক প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করেন লিয়ান। প্রেমিককে নিয়ে আলোচনা করতে গিয়ে তারা একে অপরের প্রেমে পড়েন। জানা যায়, লিয়ান-এমার মধ্যে সম্পর্ক গড়ে ওঠে ২০১৯ সালে।

তবে এর আগে কখনও কোনো নারীর সঙ্গে সম্পর্কে জড়াননি লিয়ান। অন্যদিকে, তেত্রিশ বছর বয়সী এমা হলেন উভকামী। বিয়ের পর দুইজনেই আইভিএফ পদ্ধতিতে গর্ভধারণের চেষ্টা শুরু করেন। আইভিএফ পদ্ধতিতে ভ্রূণ তৈরির জন্য এমার ডিম্বাণু এবং অপরিচিত এক শুক্রাণুদাতার শুক্রাণু ব্যবহার করা হয়। তৈরি ভ্রূণ লিয়ানের জরায়ুতে স্থানান্তরিত করা হয়। গর্ভধারণের এই প্রক্রিয়ায় দুইজনেই সমানভাবে অংশ নেন। তাদের জীবনে আসে ছেলে ক্যাসপার। ক্যাসপারকে পেয়ে দুইজনেই এখন খুব খুশি।

তবে তাদের জীবনে এই সুখ হয়তো ক্ষণস্থায়ী ছিল। সন্তানের জন্মের মাস কয়েকের মধ্যেই লিয়ান নিজের শরীরের কর্কট রোগের কথা জানতে পারেন। তিনি কোলন ক্যানসারে আক্রান্ত। তবে ভেঙে পড়েননি তাদের কেউই। তারা অঙ্গীকারবদ্ধ যে ক্যানসারের বিরুদ্ধে এই কঠিন লড়াই তাদের লড়তেই হবে। এ প্রসঙ্গে এমা বলেন, “আমাদের সামনে পুরো জীবন পড়ে আছে। ছোট্ট ক্যাসপারের জন্য লিয়ানকে ঠিক হতেই হবে। আমরা ওর পাশে আছি।”