ফের প্রকাশ্যে তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব! খোলা মঞ্ছে এক বিধায়ক অপর বিধায়ককে দিলেন হুমকি

16
ফের প্রকাশ্যে তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব! খোলা মঞ্ছে এক বিধায়ক অপর বিধায়ককে দিলেন হুমকি

একুশের বিধানসভা নির্বাচনে ব্যাপক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়ে দ্বিতীয়বারের জন্য সরকার গঠন করেছে তৃণমূল। অথচ তৃণমূলের অভ্যন্তরের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব এখনো অব্যাহত। নির্বাচন পূর্বে তৃণমূলের অভ্যন্তরের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব নিয়ে উত্তাল হয়ে উঠেছিল রাজনৈতিক মহল। নির্বাচনে বিপুল আসনে জয়লাভ করার পরেও যে সেই গোষ্ঠী দ্বন্দ্বের অবসান ঘটেনি তা আরও একবার প্রমাণ হয়ে গেল। এবার তৃণমূলের তরফের এক বিধায়ক অপর বিধায়ককে খোলা মঞ্চে দাঁড়িয়ে রীতিমতো শাঁসিয়ে দিলেন।

প্রকাশ্য জনসভায় দাঁড়িয়ে মুর্শিদাবাদের রেজিনগরের তৃণমূল বিধায়ক রবিউল আলম চৌধুরীকে রীতিমতো হুমকি দিলেন ভরতপুরের তৃণমূল বিধায়ক হুমায়ূন কবির। সেখানে প্রকাশ্য জনসভায় দাঁড়িয়ে তিনি রবিউল আলমকে উদ্দেশ্য করে বলেন, “সাবধান রবিউল! আমার সঙ্গে পাঙ্গা নিতে এলে হাড়গোড় এক করে দেব।” এই ঘটনার একটি ভিডিও রাজনৈতিক মহলে শোরগোল ফেলে দিয়েছে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ভিডিওটি ভাইরাল হতেই রেজিনগরের তৃণমূল বিধায়ক আলম চৌধুরী দলের শীর্ষ নেতৃত্বদের কাছে এই বিষয়ে হুমায়ন কবিরের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন রবিউল আলম। এইভাবে প্রকাশ্য জনসভায় দাঁড়িয়ে তাকে হুমকি দেওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে শীর্ষ নেতৃত্বদের কাছে হুমায়ুন কবিরের শাস্তির দাবি করেছেন রবিউল আলম। উল্লেখ্য মুর্শিদাবাদের এই দুই নেতার অন্তর্দ্বন্দ্ব কিন্তু বহু পুরনো।

২০১১ সালে কংগ্রেসের টিকিটে রেজিনগর আসন থেকে জয়ী হয়েছিলেন হুমায়ূন কবির। যদিও এরপর তিনি তৃণমূল শিবিরে নাম লেখান। উপনির্বাচনে রবিউল আলমের কাছে হেরে যান হুমায়ুন কবীর। এরপর আবার তৃণমূল শিবির ছেড়ে কংগ্রেস দলে ফিরে যান তিনি। ২০১৬ সালেও কংগ্রেসের টিকিটে জয়ী হন রবিউল আলম চৌধুরী। যদিও আবার কংগ্রেস শিবির ছেড়ে তৃণমূলে শিবিরে চলে আসেন রবিউল আলম।