মহাকাশেও ট্র্যাফিক জ্যাম! অল্পে রক্ষা ভারতের স্যাটেলাইট

15
মহাকাশেও ট্র্যাফিক জ্যাম! অল্পে রক্ষা ভারতের স্যাটেলাইট

দিন যাচ্ছে আর সব জায়গার মতো এখন মহাকাশেও হচ্ছে ট্র্যাফিক জ্যাম। যার ফলে এই এক নতুন দুশ্চিন্তার জন্ম নিল মহাকাশে। সম্প্রতি মহাকাশেই হতে চলেছিল ভয়ঙ্কর এক অ্যাক্সিডেন্ট। যার ফলে ক্ষতিগ্রস্ত হত ভারত। আসলে দিন যাচ্ছে বিজ্ঞানের হাত ধরে বিভিন্ন দেশ মহাকাশে পাঠাচ্ছে স্যাটেলাইট আর যার ফলে বেড়ে যাচ্ছে ট্র্যাফিক জ্যাম। একটু ভুল চুক আর ঘটে যাবে এক বিশাল দুর্ঘটনা।

এবার এমনটাই হলো ইসরোর সাথে, ISRO-র Cartosat 2F র খুব কাছে চলে এসেছিল রাশিয়ার স্যাটেলাইট Kanopus-V । বলা যেতে পারে এক্কেবারে কানের কাছে দিয়ে বেরিয়ে গেছে রাশিয়ার এই স্যাটেলাইট। রাশিয়ার রস্কোস্মস গবেষণা কেন্দ্র থেকে জানানো হয়েছে মাত্র ২২৪ মিটার দূরত্ব দিয়ে বেরিয়ে গেছে দুটি স্যাটেলাইট। ইসরোর স্যাটেলাইটের ওজন ছিল প্রায় ৭০০ কেজি আর এই সংঘর্ষ হলে একেবারে তুলকালাম কাণ্ড ঘটতো মহাকাশে।

এখন মহাকাশে প্রায় দৈনিক সংখ্যা বেড়ে যাচ্ছে স্যাটেলাইটের, আর সেই কারণেই উপগ্রহের অরবিটের দূরত্ব কমে যাচ্ছে ক্রমশ। তাই ৩-৪ সপ্তাহ পরেই এই অরবিট নিয়ে পর্যালোচনা করে বিজ্ঞানীরা। যদি দেখা যায় পৃথিবী থেকে ৫০০ কিলোমিটার উচ্চতায় শয়ে শয়ে স্যাটেলাইট ঘুরে বেড়াচ্ছে, যার ফলে বেড়ে যাচ্ছে ট্র্যাফিক জ্যাম। কিন্তু সেইসব স্যাটেলাইটগুলোকে যে কাজে লাগানো হয়েছে সেখান থেকে অন্যত্র নিয়ে যাওয়া সম্ভব নয়। ২০০৯ সালে এমন একটি বড় দুর্ঘটনা ঘটেছিল মার্কিন স্যাটেলাইট ও রুশ স্যাটেলাইটের মধ্যে। যার ফলে অনেক টুকরোই ছড়িয়ে পড়েছিল সাইবেরিয়ায়।

দুটি স্যাটেলাইট এর মধ্যে দূরত্ব নিয়ে বিভিন্ন দেশের বিভিন্ন মডেল রয়েছে, যার মধ্যে রুশ মডেল, আমেরিকান মডেল, ইউরোপীয় মডেল অন্যতম। ভারতের মডেল তৈরি হচ্ছে বলে জানা গেছে। সেখানে বলা হয়েছে, দুটি স্যাটেলাইটের মধ্যে দূরত্ব হওয়া উচিত এক কিলোমিটার। কিন্তু রুশ মডেল জানাচ্ছে ৫০০ মিটার। ইতিমধ্যে রিপোর্টে জানা গেছে, মহাকাশে এখন ঘুরে বেড়াচ্ছে মোট ২০০০ উপগ্রহ। এখন এদের মধ্যে নির্দিষ্ট দূরত্ব বজায় রাখা টাই আসল প্রশ্ন।