আজ আমার ঘর ভেঙেছে, কাল তোর অহংকার চুরমার হবে, মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রীকে এভাবেই আক্রমন করলেন কঙ্গনা

7
আজ আমার ঘর ভেঙেছে, কাল তোর অহংকার চুরমার হবে, মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রীকে এভাবেই আক্রমন করলেন কঙ্গনা

এখনো পর্যন্ত মুম্বাইতে দিতে পারেনি কঙ্গনা রানাওয়াত, এর মধ্যেই পৌরসভা থেকে বিএমসির অফিসাররা কঙ্গনা রানাওয়াতের অফিস ভাঙচুর করতে শুরু করে দেয়। সেই ছবি পোস্ট করে কঙ্কণার সকলকে জানান যে,”ঠিক এই কারনেই আমি মুম্বাইকে অধিকৃত কাশ্মীর বলে সম্বোধন করেছিলেন। যারা শত্রু তারা এই কাজের মধ্য দিয়ে দেখিয়ে দিল তাদের শত্রুতা”।

এই ভিডিও টুইট করে কঙ্গনা মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ভব ঠাকরে কে উদ্দেশ্য করে বলেন যে,”উদ্ভব ঠাকরে তুই কি ভাবছিস? ফিল্ম মাফিয়াদের সঙ্গে মিলে আমার বাড়ি ভেঙে দিবি? আজ আমার ঘর ভেঙেছে, কাল তোর অহংকার চুরমার হবে। মনে রাখিস সময়ের চাকা কখনো এক জায়গায় থেমে থাকে না”।

এই প্রসঙ্গে কঙ্কণার মা আশা রানাওয়াত কঙ্কণার পক্ষে দাঁড়িয়ে টুইট করে লিখেছেন যে,”উদ্ভব ঠাকরে আজ তুমি শুধুমাত্র আমার মেয়ের অফিস নয়, নিজের স্বর্গীয় পিতা বালাসাহেব ঠাকরে আত্মা কেও আঘাত করেছ”।
বুধবার অভিনেত্রী মুম্বাই পৌঁছানোর পর থেকেই এই বিষয়টি নিয়ে আরো বেশি শোরগোল বেধে যায়। বোম্বে হাইকোর্ট পর্যন্ত ঘটনাটি গড়িয়ে যাওয়ার পর আদালতে তরফের মুম্বাই পৌরসভা কে কঙ্কণার অফিস ভাঙ্গার কাজ বন্ধ রাখার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এরইমধ্যে মহারাষ্ট্র সরকার এবং মুম্বাই পৌরসভা কে উদ্দেশ্য করে বিরোধী দলনেতা দেবেন্দ্র ফড়নবিশ “ডেথ অফ দেমোক্রেসি” হ্যাশট্যাগ দিয়ে একটি ভিডিও আপলোড করেন। এই ভিডিওটি শেয়ার করেছেন কঙ্গনা রানাওয়াত স্বয়ং।
হিমাচল প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী জয় রাম ঠাকুর সমগ্র ঘটনার তীব্র নিন্দা করে সমস্ত ঘটনাটিকে দুর্ভাগ্যজনক আখ্যা দিয়েছেন।
সূত্রের খবর অনুযায়ী, এনসিপি নেতা শরদ পাওয়ার উদ্ভব সরকারের নেতৃত্বে মুম্বাই পৌরসভার এহেন আচরণে ক্ষুব্ধ হয়েছেন। খুব তাড়াতাড়ি এই নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলবেন তিনি। এই প্রসঙ্গে কঙ্গনা রানাওয়াত এর পাশে দাঁড়িয়েছেন কর্ণী সেনা রাও।