সমুদ্রের তলায় দেখা যাবে হাজার হাজার বছরের পুরনো ইতিহাস! বিশেষ ব্যবস্থা চালু করল গ্রীস

7
সমুদ্রের তলায় দেখা যাবে হাজার হাজার বছরের পুরনো ইতিহাস! বিশেষ ব্যবস্থা চালু করল গ্রীস

সমুদ্রের তলদেশে কতইনা অজানা রহস্য লুকিয়ে আছে। সব রহস্যের কিনারা করা এখনো সম্ভব হয়ে ওঠেনি। তবে জানেন কি সমুদ্রের জলে ডুব দিলেই হাজার হাজার বছরের পুরনো ইতিহাস ভেসে উঠতে পারে আপনার চোখের সামনে? সমুদ্রের নীল স্ফটিকের স্বচ্ছ জলে একবার ডুব দিলেই ইতিহাসের অতলে ডুবে যাবেন আপনি। প্রায় হাজার হাজার বছর আগে গড়ে ওঠা এথেন্স, স্পার্টার গৌরবময় সভ্যতার সাক্ষী থাকতে পারবেন।

আপনার চারপাশে ঘুরে বেড়াবে বিভিন্ন মাছ এবং সামুদ্রিক প্রাণী। পর্যটন ব্যবস্থার উন্নয়নের জন্য এমনই এক বিশেষ ব্যবস্থা চালু করেছে গ্রীস। ইতিহাসকে সঙ্গী করে সমুদ্রের নিচেই বানিয়ে ফেলেছে বৃহৎ এক সংগ্রহশালা। আন্ডার ওয়াটার মিউজিয়াম বানানো হয়েছে পর্যটকদের আকর্ষণ করার জন্য। সমুদ্রের তলদেশের এই সংগ্রহশালার সাক্ষী থাকতে হলে ডাইভিংয়ের মাধ্যমে জলতল থেকে ৮০ ফুট গভীরে চলে যেতে হবে।

প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ডুবুরি গাইডরাই আপনাকে সাহায্য করবেন। সংগ্রহশালায় পৌঁছতে গেলে ডুবুরি গাইডদের সহায়তা নিতে হবে। তবে এখানে যাওয়ার জন্য ডাইভিং কোর্সের সার্টিফিকেট থাকতে হবে। ডাইভিংয়ের কোর্স করা থাকলে সেই সার্টিফিকেট দেখিয়ে আপনি পৌঁছে যেতে পারবেন সমুদ্রের অতলে। সমুদ্রের তলে ডুব দিলেই আপনি পৌঁছে যাবেন খ্রিষ্টপূর্ব ৪৩১-৪০৫ অব্দের সেই সুবর্ণ যুগে। ঠিক সেই সময়েই পেলোপনেশিয়ান যুদ্ধে সমুদ্রের তলায় তলিয়ে গিয়েছিল একটি প্রাচীন জাহাজ।

২৪০০ বছরের পুরনো সেই ধ্বংসস্তূপের উপরেই গড়ে উঠেছে নতুন সংগ্রহশালা। আন্ডার-ওয়াটার জাদুঘরের সঙ্গে গড়ে তোলা হয়েছে কোরাল-উদ্যান। পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হয়েছে সেই সংগ্রহশালা। এখনো অবধি মোট ৩০০ জন যাত্রী ঘুরে এসেছেন সেই সংগ্রহশালা থেকে। যারা জলে নামতে চান না তাদের জন্য ২৪ ঘণ্টার লাইভ স্ট্রিমিংয়ের ব্যবস্থাও থাকবে বলে জানানো হয়েছে। যদিও সেই ব্যবস্থা এখনও চালু করা হয়নি।

Underwater Museum opens ancient world to dive tourists in Greece | Sangbad Pratidin