সুপ্রিম কোর্টের রায়ে উপকৃত হাজার হাজার বেসরকারি স্কুলের শিক্ষক

16
সুপ্রিম কোর্টের রায়ে উপকৃত হাজার হাজার বেসরকারি স্কুলের শিক্ষক

সম্প্রতি সুপ্রিম কোর্টের তরফ থেকে জানিয়ে দেয়া হয়েছে যে বেসরকারি স্কুলে যে শিক্ষকরা কর্মরত রয়েছেন তারাও কর্মচারী হিসেবে গ্র্যাচুয়িটি পাওয়ার যোগ্য। পেমেন্ট অফ গ্রাচুইটি অ্যাক্ট অনুসারে পাঁচ বছরের কম কাজ করেননি এমন কর্মচারী বা তার পরিবারকে অবসর ইস্তফা মৃত্যু অথবা দুর্ঘটনায় অক্ষম হওয়ার পরে গ্রাচুয়িটি দিতে হয়।

একাধিক নিম্ন আদালতে পরাজিত হওয়ার পর বেসরকারি স্কুলগুলি ২০০৯ সালের একটি সংশোধন কে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থা হয়েছিল। যারা পড়ুয়াদের শিক্ষাদান করছেন তারা পিএজি অনুসারে এমপ্লয়ি নন বলে দাবি করেছিল বেসরকারি সংস্থাগুলি। কারণ তারা কোন দক্ষতা,, অদক্ষতা, অর্ধ-দক্ষতা, প্রশাসনিক, টেকনিক্যাল, ক্ল্যারিক্যাল কাজ করছেন না।

তবে স্কুলের এই যুক্তি ধোপে টে্ঁকেনি। স্কুলের তরফ থেকে দাবি করা হয় যে শিক্ষকদের গ্রাচুয়িটি দেওয়ার মতো আর্থিক সংস্থান তাদের কাছে নেই। তার পরিপ্রেক্ষিতে আদালতে বলা হয় এটি একটি ন্যূনতম পাওনা। স্কুলগুলির গ্রাচুয়য়িটি দেওয়া অক্ষমতা তাই মানতে চাননি বিচারপতিদের বেঞ্চ। ছয় মাসের মধ্যেই বকেয়া গ্র্যাচুয়িটি মিটিয়ে দেওয়ার ব্যাপারে নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

সেই সঙ্গে শিক্ষকদেরকে জানানো হয়েছে যে যদি স্কুল এখনো এই দাবি না মানে তাহলে শিক্ষকরা নির্দিষ্ট ফোরামে যেতে পারেন। এরফলে হাজার হাজার বেসরকারি স্কুলের শিক্ষকরা উপকৃত হবেন। সুপ্রিম কোর্টের এই সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানাচ্ছেন স্কুলের শিক্ষকরা।