অনলাইনে স্বামীকে ভাড়া দিচ্ছেন এই মহিলা

16
অনলাইনে স্বামীকে ভাড়া দিচ্ছেন এই মহিলা

আজব ঘটনা নেট পাড়ায় ছড়িয়েছে সেই ঘটনা তে দেখা যাচ্ছে অনলাইনে স্বামী বিক্রি করা হচ্ছে এবং এই বিক্রি করছেন তার নিজের স্ত্রী ঘটনাটি প্রকাশ্যে আসতেই অনেকেই সেই মহিলাকে প্রশ্ন করেছেন যে কেন তিনি তার স্বামীকে ভাড়া দিচ্ছেন? এই ভাড়া দেওয়ার পিছনে তার আসল উদ্দেশ্যটা কি?

আসলে এই ঘটনাটি শুরু হয়েছে একটি বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে যদি ফেসবুকে দেওয়া হয়েছিল এবং সেই বিজ্ঞাপনটির শিরোনাম হলো “হায়ার মাই হ্যান্ডি হ্যাবি”। এই শব্দগুলোর বাংলা অর্থ হলো আমার কর্মঠ স্বামীকে ভাড়া দেওয়া হবে যে বিজ্ঞাপনটা দিয়েছেন স্বয়ং স্ত্রী যার কারণে প্রশ্ন উঠেছ।

গোটা নেট মাধ্যমে জানিয়ে তীব্র নিন্দা ও ছড়িয়েছে সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে। ঘটনাটি ইংল্যান্ডের বেকিংহ্যামশেয়ারের। বাসিন্দা এবং তিন সন্তানের মা লরা ইয়ং, তিনি তার স্বামীকে ভাড়া দেওয়ার জন্য এই বিজ্ঞাপনটি দিয়েছিলেন এবং এই বিজ্ঞাপন দেওয়ার অর্থ হচ্ছে তিনি অর্থ উপার্জন করতে চান, আসলে ব্যাপারটি হল লরা স্বামী একজন বেকার মানুষ, তবে তিনি একজন ইন্টেরিয়র ডেকোরেশনার, ছোটখাট জিনিস দিয়ে তিনি ঘরের অনেক কিছু আসবাবপত্র তৈরি করতে পারেন, ঘর কিভাবে সাজানো যায় সেই বুদ্ধিতে একদম পাকা, এমনকি সাথে ছবিও খুব সুন্দর রাখতে পারেন, দেওয়ালে তুলির টানে অসাধারণ ছবি ফুটিয়ে তুলতে পারেন।

লরা চেয়েছেন স্বামীর এই কাজগুলোর মাধ্যমেই যেন উপার্জন করতে পারেন তবে এই বিজ্ঞাপনকে সোশ্যাল মিডিয়ায় নেটিজেনরা ভুল ভেবেছে, লরা জানিয়েছেন ঘরকে কিভাবে সাজাতে হয় সে বুদ্ধি তার স্বামীর ভীষণ ভালোমতো আছে তাই তার এই গুণগুলোকে যদি কাজে লাগানোর যায় তাহলে খুবই ভালো হয়। তিনি তার স্বামীর কাজের জন্য বহু ওয়েবসাইটে বিজ্ঞাপন দিয়েছেন তবে তার এ বিজ্ঞাপনের মানেটাকে একেবারেই ভুল বোঝা হয়েছে।

তবে নেটিজেনদের উদ্দেশ্যে লরা জানিয়েছেন, যে” আমি যদি কখনো বিপদে পড়ি তাও আমার স্বামীকে আমি অন্যরকমভাবে কাজে দেব না, আপনারা যেটা বুঝেছেন সেটা সম্পূর্ণ ভুল।”