এবার ‘ছেলে পাঠিয়ে দেওয়ার হুমকি’ দিয়ে বিতর্কে জড়ালেন তৃণমূলের যুব নেত্রী সায়নী ঘোষ

15
এবার ‘ছেলে পাঠিয়ে দেওয়ার হুমকি’ দিয়ে বিতর্কে জড়ালেন তৃণমূলের যুব নেত্রী সায়নী ঘোষ

‘ছেলে পাঠিয়ে দেওয়ার হুমকি’ বিতর্ক যেন পিছু ছাড়ছে না তৃণমূলের! বেশ কয়েক বছর আগে তৃণমূলের তরফের প্রাক্তন বিধায়ক তাপস পাল বিরোধীদের জবাব দিতে গিয়ে ঘরে ছেলে পাঠিয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়েছিলেন! এতে কার্যত মুখ পুড়েছিল তৃণমূলের। এখন আবার সেই একই হুমকি দিলেন তৃণমূলের যুব নেত্রী সায়নী ঘোষ। ত্রিপুরার বিধানসভা নির্বাচন উপলক্ষে বিরোধীদের হুঁশিয়ারি দিতে গিয়ে ফের ছেলে পাঠানোর হুমকি দিলেন সায়নী।

ত্রিপুরার আসন্ন বিধানসভা নির্বাচন উপলক্ষে পূর্ব মেদিনীপুরে বক্তৃতা রাখতে গিয়ে সায়নী সম্প্রতি বলেছেন, এই জেলা থেকে ত্রিপুরাতে তিনি ১০০ ছেলে পাঠিয়ে দেবেন। গোটা ত্রিপুরা, আগরতলার BJP-কে ঠান্ডা করে দেবে তারা। সায়নীর এই বক্তব্যে কার্যত রাজনৈতিক মহলে জোর সমালোচনা শুরু হয়েছে। যদিও সায়নীর পক্ষে কথা বলার মতো মানুষের সংখ্যাও নেহাত কিছু কম নয়। তাদের দাবি, সায়নী নিছক আক্রমণ শানাতে এমন মন্তব্য করেছেন।

মঙ্গলবার পূর্ব মেদিনীপুর জেলার সুতাহাটার সুবর্ণ জয়ন্তী ভবনে সাংগঠনিক সভায় অংশগ্রহণ করেছিলেন তৃণমূলের যুব নেত্রী সায়নী ঘোষ। সায়নী এদিন বলেন ত্রিপুরাতে তৃণমূলের সদস্যদের উপর আক্রমণ চালানো হচ্ছে। কাজেই পূর্ব মেদিনীপুর থেকেই ১০০ জন ছেলে আগরতলা তে পাঠিয়ে দিলে সম্পূর্ণ আগরতলা ঠান্ডা হয়ে যাবে। ত্রিপুরার সংগঠনকে কীভাবে ধূলিস্যাৎ করতে হয়, তা দেখিয়ে দেবে বাংলার ছেলেরা।

সায়নীর এই বক্তব্য ঘিরে বিজেপির অন্দরমহলে জোর সমালোচনা শুরু হয়েছে। বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু দাবি করেন ত্রিপুরাতে তৃণমূলের কোনো সংগঠন নেই। বাংলা থেকেই তাই লোকজন নিয়ে গিয়ে সেখানে মিছিল করা হচ্ছে। সায়নীর বক্তব্যের বিরোধিতা করেছেন সিপিআইএম সমর্থকেরাও। CPIM নেতা রবীন দেব বলেন, সায়নী তার দলের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখেই কথা বলছেন।