এবার সিকিমের নাকুলা এলাকায় অনুপ্রবেশের চেষ্টা লালফৌজের, প্রতিহত করল ভারতীয় সেনা

5
এবার সিকিমের নাকুলা এলাকায় অনুপ্রবেশের চেষ্টা লালফৌজের, প্রতিহত করল ভারতীয় সেনা

ভারতীয় ভূখণ্ড আগ্রাসনের উদ্দেশ্যে নতুন পথ অবলম্বন করেছে চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মির সদস্যরা। লাদাখের দুর্গম পার্বত্য অঞ্চল দিয়ে নয়, এবার সিকিমের নাকুলা এলাকা দিয়ে ভারতীয় ভূখণ্ডে অনুপ্রবেশের চেষ্টা চালাচ্ছিল চীনা ড্রাগনের দল। তবে লালফৌজের সেই প্রচেষ্টা ব্যর্থ করে দিয়েছে ভারতীয় সেনা। ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর প্রবল বাধার মুখে পড়ে শেষ-মেষ পিছু হটতে বাধ্য হয়েছে ভারতের শত্রুরা!

চীনা সেনা বাহিনীকে প্রতিহত করে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী আরও একবার প্রমাণ করে দিল, সীমান্তে যেকোনো ধরনের বাধা বিপত্তি, অনুপ্রবেশের চেষ্টা, হামলা রুখে দেওয়ার ক্ষমতা রয়েছে ভারতের। গত বছরের জুন মাসে গালওয়ান উপত্যকায় ভারত-চীন প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে ভারতে অনুপ্রবেশ চালানোর চেষ্টা করেছিল চীন। চিনা সৈন্যবাহিনীকে প্রতিহত করতে গিয়ে সীমান্তে শহীদ হন ভারতের ২০ জণ সেনা জওয়ান।

সেই ঘটনার এক বছরও অতিক্রান্ত হয়নি, সিকিম সীমান্তে নতুন করে ভারত-চীন সেনা সংঘর্ষ বাঁধলো। এই সংঘর্ষে চীনের অন্তত ২০ জন সেনা আহত হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। অপরপক্ষে ভারতের চার জন সেনা জওয়ানও সীমান্ত সংঘর্ষের জেরে আহত হয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বর্তমানে উত্তর সিকিম সীমান্তের নাকুলা এলাকার আবহাওয়া অত্যন্ত দুর্যোগপূর্ণ।

এই দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়াতই চীনা সৈন্যবাহিনীর ষড়যন্ত্র ভারতীয় সৈন্য বাহিনী রুখে দিতে সক্ষম হয়েছে। সংঘর্ষের জেরে ওই এলাকায় এখন কার্যত যুদ্ধের পরবর্তী থমথমে ভাব বজায় রয়েছে। তবে সিকিমের নাকুলা সীমান্তে দুই প্রতিবেশী রাষ্ট্রের সেনা সংঘর্ষ ভারত-চীন সীমান্ত সংঘর্ষকে স্বভাবতই এক নতুন মাত্রা দিল। পাশাপাশি, ভারতীয় সেনাবাহিনীও শত্রু রাষ্ট্রকে বেশ বুঝিয়ে দিয়েছে লাদাখের দুর্গম পার্বত্য অঞ্চল হোক কিংবা সিকিমের নাকুলা সীমান্ত, শত্রু রাষ্ট্রকে পরাহত করতে ভারত সর্বদা প্রস্তুত।