আয়ুর্বেদিক চিকিৎসকদের এবার অস্ত্রোপ্রচারের অনুমতি দিল কেন্দ্র সরকার

3
আয়ুর্বেদিক চিকিৎসকদের এবার অস্ত্রোপ্রচারের অনুমতি দিল কেন্দ্র সরকার

আয়ুর্বেদিক উপচারের দিকে ঝুঁকছে ভারত। কেন্দ্রীয় সরকারের অনুপ্রেরণায় ভারতের প্রাচীন চিকিৎসা পদ্ধতিতে এক নতুন মাত্রা যোগ করে আধুনিক চিকিৎসা পদ্ধতির অংশীদার হিসেবে উপস্থাপনা করার প্রয়াস চলছে। সেই প্রয়াস সফল করতে সম্প্রতি এক অভিনব সিদ্ধান্ত গ্রহণ করল কেন্দ্রীয় সরকার। কেন্দ্রের তরফ থেকে প্রকাশিত নির্দেশিকা অনুসারে এবার থেকে আয়ুর্বেদিক পড়ুয়া-চিকিৎসকেরা শল্যচিকিৎসা করতে পারবেন।

সরকারের নতুন নিয়ম অনুসারে আয়ুর্বেদিক চিকিৎসকদের অস্ত্রোপ্রচারের অনুমতি দেওয়া হল। এক্ষেত্রে আয়ুর্বেদের স্নাতকোত্তর পাঠরত পড়ুয়াদের অস্ত্রোপচারের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। আয়ুর্বেদের চিকিৎসকেরাও এবার থেকে রোগীর শল্য চিকিৎসা করতে পারবেন। হাড়ের রোগে, চক্ষু, নাক-কান-গলা (ইএনটি) এবং দাঁতের সঙ্গে সম্পর্কিত অস্ত্রোপচার করার অনুমতি প্রদান করা হয়েছে তাদের।

কেন্দ্রের এই নির্দেশিকার পর সেন্ট্রাল মেডিক্যাল কাউন্সিল অফ ইন্ডিয়ান মেডিসিনের সভাপতি জানালেন, আয়ুর্বেদিক চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানগুলিতে বিগত প্রায় ২৫ বছর ধরে এই ধরনের শল্যচিকিৎসা চলছে। কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে এবার সেই চিকিৎসা পদ্ধতিতে অনুমোদন দেওয়া হল। ভারতীয় চিকিৎসা কেন্দ্রীয় পরিষদ (স্নাতকোত্তর আয়ুর্বেদ শিক্ষা) সংশোধন বিনিয়ম, ২০২০ অনুসারে এবার থেকে আয়ুর্বেদের পিজি কোর্সে অস্ত্রপ্রচারের প্রশিক্ষণ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, কেন্দ্রের এই নতুন সিদ্ধান্তের আয়ুর্বেদ চিকিৎসা সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিরা খুব খুশি। তারা দীর্ঘদিন ধরেই আয়ুর্বেদিক চিকিৎসা পদ্ধতিতে এলোপ্যাথির মতো সুযোগ-সুবিধা প্রদানের দাবি জানিয়ে আসছিলেন। এতদিনে তাদের দাবি সফল হওয়ার প্রথম সোপানে পা রাখলো। তবে চিকিৎসক মহলে কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তের জোর সমালোচনা চলছে। এই নতুন সিদ্ধান্তের জেরে চিকিৎসা পদ্ধতির ক্ষেত্রে বেশ অস্বচ্ছতা সৃষ্টি হবে বলে দাবি করছেন চিকিৎসক মহলের একাংশ।