এবার মৃতদেহ ভাসতে দেখা গেল মধ্যপ্রদেশের পান্না জেলার রুঞ্জ নদীতেও

3
এবার মৃতদেহ ভাসতে দেখা গেল মধ্যপ্রদেশের পান্না জেলার রুঞ্জ নদীতেও

সম্প্রতি বিহার এবং উত্তরপ্রদেশে গঙ্গার জলে মৃতদেহ ভাসাকে কেন্দ্র করে উত্তাল হয়ে ওঠে সারা দেশ। দেশের সাধারন নাগরিকদের দাবি, করোনায় মৃত রোগীর মৃতদেহ সৎকার না করেই ভাসিয়ে দেওয়া হচ্ছে গঙ্গার জলে। এরফলে সংক্রমণ আরো ছড়িয়ে পড়ার ভয় থেকে যাচ্ছে। বিহার এবং উত্তরপ্রদেশের পর এবার মধ্যপ্রদেশের পান্না জেলার রুঞ্জ নদীর তীরবর্তী অঞ্চলের বাসিন্দারাও একই অভিযোগ আনলেন।

পান্না জেলার রুঞ্জ নদীতে সম্প্রতি দুটি মৃতদেহ ভেসে যেতে দেখা যায়। যদিও স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি তারা নদীতে আরো বেশ কয়েকটি মৃতদেহ দেখেছিলেন। তবে প্রশাসনের তরফ থেকে দাবি করা হয়েছে, নদী থেকে জোড়া মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। দুটি মৃতদেহ কবর দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে প্রশাসন। প্রশাসন এও জানিয়েছে, মৃতদেহ দুটি সঙ্গে করোনার কোন সম্পর্ক নেই।

এই দুটি মৃতদেহের মধ্যে একজন জীবদ্দশায় ক্যান্সার আক্রান্ত ছিলেন। অপর জনের বয়স ৯৫ বছরের আশেপাশে। সামাজিক রীতি মেনেই গঙ্গায় দেহ ভাসিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে দাবি করছে প্রশাসন। তবে ওই অঞ্চলের বাসিন্দারা কিন্তু এমন ঘটনার জেরে বেশ আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন। নদী তীরবর্তী বেশকিছু পরিবার এই নদী থেকেই পানীয় জল সংগ্রহ করেন। অতএব তারা সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কায় ভুগছেন।

প্রসঙ্গত সম্প্রতি গঙ্গা-যমুনাতে অগুন্তি মৃতদেহ ভেসে বেড়াতে দেখা যায়। বিহারের বক্সারে কমপক্ষে ৭১টি মৃতদেহ গঙ্গায় ভাসতে দেখা গিয়েছিল। তবে বিহার সরকার অবশ্য এর দায়ভার সম্পূর্ণ উত্তরপ্রদেশ সরকারের উপর চাপিয়ে দিয়েছে। এদিকে উত্তরপ্রদেশের গঙ্গার ঘাটেও একই চিত্র লক্ষ্য করা যায়। নদীর জলে এইভাবে মৃতদেহ ভাসতে দেখে আরো আতঙ্কিত হয়ে পড়ছেন মানুষ।