এবার শাসকদলে আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের পরিবারতন্ত্রের অভিযোগ তুললো বিজেপি শিবির

20
এবার শাসকদলে আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের পরিবারতন্ত্রের অভিযোগ তুললো বিজেপি শিবির

আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে কেন্দ্র করে বিগত বেশ কিছুদিন ধরেই রাজ্য রাজনীতি উত্তাল হয়ে রয়েছে। এবার বিরোধী বিজেপি শিবির রাজ্য শাসকদলে আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের পরিবারতন্ত্রের অভিযোগ তুললো। বিজেপি শিবিরের দাবি, আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের পরিবারকে বিশেষ সুবিধা দিচ্ছে তৃণমূল শিবির। প্রথমে আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় এবং তার স্ত্রী সোনালী চক্রবর্তী, এরপর আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় এর ভাতৃবধূকেও রাজ্য সরকারের অধীনে উচ্চপদে নিয়োগ করা হয়েছে।

সম্প্রতি রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্য সচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে মুখ্যমন্ত্রী মাসিক আড়াই লক্ষ টাকা বেতনের বিনিময়ে নিজের মুখ্য উপদেষ্টা করে নিয়েছেন। শুধু তাই নয়, আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় স্ত্রী সোনালী চক্রবর্তী বন্দ্যোপাধ্যায়কেও কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার পদ থেকে সরাসরি উপাচার্য পদে উন্নীত করে দেওয়া হয়েছে। আলাপনের ভাই প্রয়াত সাংবাদিক অঞ্জন বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ত্রীকেও রাজ্যের পর্যটন বিভাগে লক্ষাধিক টাকার চাকরি দিয়েছে রাজ্য সরকার।

রাজ্য পর্যটনের পরামর্শদাতা হিসেবে নিয়োগ করা হয়েছে অঞ্জন বন্দ্যোপাধ্যায়ে স্ত্রীকে। এদিকে আবার আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ত্রী সোনালী চক্রবর্তী বন্দ্যোপাধ্যায় কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হওয়ার পরপরই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ডি লিট সম্মানে ভূষিত করে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়। সব মিলিয়ে রাজ্য রাজনীতিতে পরিবারতন্ত্রের জল্পনা পারদ চড়ছে। সাম্প্রতিক ঘটনাবলী বিবেচনা করে সরব হয়েছে বিজেপি।

বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী প্রশ্ন তুলেছেন, রাজ্যের বেকার যুবক যুবতীরা যেখানে চাকরি পাচ্ছেন না সেখানে একই পরিবারের তিনজন সদস্য রাজ্য সরকারের অধীনে চাকরি পেয়ে গেলেন! বিতর্ক উস্কে দিয়ে তার প্রশ্ন, বাঙালি কি এই বন্দ্যোপাধ্যায় পরিবারকে টপকে আদেও কোনদিনও চাকরি পাবে? হিসেব বলছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় পরিবারের পেছনে প্রতি মাসে প্রায় ৬.১০ লক্ষ টাকা মঞ্জুর করেছেন!