এবার বঙ্কিমচন্দ্রএর আনন্দমঠ উপন্যাসটিকে বড়পর্দায় আনতে চলেছে সাউথ ইন্ডিয়ান সিনেমা

11
এবার বঙ্কিমচন্দ্রএর আনন্দমঠ উপন্যাসটিকে বড়পর্দায় আনতে চলেছে সাউথ ইন্ডিয়ান সিনেমা

আরো একবার বাংলা সিনেমাকে একটা উপহার দিতে চলেছে সাউথ ইন্ডিয়ান সিনেমা। সাহিত্য সম্রাট বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় রচিত আনন্দমঠ উপন্যাসটি আসতে চলেছে বড়পর্দায়। ভারতীয়দের মনে দেশপ্রেমের বীজ বপন করে ইংরেজদের বিরুদ্ধে যুদ্ধের ডাক দিয়েছিলেন বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় তার বন্দেমাতরম গানের মাধ্যমে। কিন্তু আশ্চর্যের বিষয় হলো সাহিত্য সম্রাট বঙ্কিমচন্দ্র আশ্চর্য সমস্ত সৃষ্টি নিয়ে সিনেমা তৈরি করার কথা কিন্তু টলিউডের মাথা থেকে এলো না। বরং বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়কে উপযুক্ত সম্মান দিলেন দক্ষিণের সিনেমা।

একের পর এক দুর্দান্ত সিনেমা তৈরি করে যখন সকলের মনোরঞ্জন করছে সাউথ ইন্ডিয়ান ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি, সেখানে দাঁড়িয়ে যখন আস্তে আস্তে পিছিয়ে যাচ্ছে বাংলা এবং হিন্দি ইন্ডাস্ট্রি, তখন আরো একবার বাংলা এবং হিন্দি ইন্ডাস্ট্রিকে পিছনে ফেলে দিয়ে বঙ্কিমচন্দ্র কে নিয়ে এগিয়ে যাবার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে সাউথ ইন্ডিয়ান সিনেমা।

বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় রচিত আনন্দমঠ উপন্যাস অবলম্বনে বার তৈরী হতে চলেছে সিনেমা। ইতিমধ্যেই এই সিনেমার চিত্রনাট্য লেখার কাজ শুরু করে দিয়েছেন কে ভি বিজেন্দ্র প্রসাদ। এস এস রাজামৌলি বাবা বহু বছর আগে আনন্দমঠ উপন্যাসটি পরেছিলেন, এবার সেই উপন্যাস অবলম্বনে আসন্ন ছবির চিত্রনাট্য লেখার কাজ শুরু করলেন এস এস রাজামৌলি বাবা।

যখন প্রথম এই উপন্যাসের উপর ছবি তৈরি করার প্রস্তাব আসে পরিচালকের কাছে তখন বেশ অবাক হয়েছিলেন তিনি। তিনি মনে করেছিলেন, বর্তমান প্রজন্ম হয়তো এই উপন্যাসের সঙ্গে কোনোভাবেই একাত্ম হতে পারবে না। এই উপন্যাসের ওপর ভিত্তি করে যদি সিনেমা তৈরি করা হয় তাহলে কোন ভাবেই সেটি বাণিজ্যিক সফলতা অর্জন করতে পারবে না।

স্বয়ংক্রিয় চন্দ্রের লেখনীতে আচর কেটে নতুন ধরনের চিত্রনাট্য লেখার কাজ শুরু করা রীতিমতো চ্যালেঞ্জ এর বিষয় চিত্রনাট্যেরদের কাছে। এই চ্যালেঞ্জ নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছেন এস এস রাজামৌলি বাবা। ছবিতে ক্রিয়েটিভ প্রযোজক হিসেবে থাকবেন সুজয় কুটটি, লেখকের কথা শর্ট ফিল্ম নির্মাতা রামকুমার মুখোপাধ্যায়। হিন্দি ভাষা ছাড়া তামিল তেলেগু ভাষাতে মুক্তি পাবে এই সিনেমা।