এবার জিও এইচ ডি এফ সি- আই টিসি- ইনফোসিসকে পিছনে ফেলে দিল

154
এবার জিও এইচ ডি এফ সি- আই টিসি- ইনফোসিসকে পিছনে ফেলে দিল

এবার এক কথায় যদি জিও সংস্থার ব্যাখ্যা দেওয়া যায় তাহলে বলতে হবে, সবাইকে পেছনে ফেলে জিও একেবারে শীর্ষে। গতকাল বুধবার ফেসবুক ৫.৭ বিলিয়ন ডলার দিয়ে জিও সংস্থার ১০% শেয়ার কিনে নিয়েছে। আর এতেই এখন মুকেশ আম্বানী সবার শীর্ষে। এই জিও সংস্থা ২০১৬ সালে টেলিকম জগতে এসেছিল, আর এসেই সবাইকে পেছনে ফেলে ঝড়ে গতিতে এগিয়ে গেছে।

সেই সময় যারা একতরফা রাজত্ব করত, তাদের পেছনে ফেলে দিয়েছে এক চুটকিতেই। সবাই এর জন্য মুকেশ আম্বানীকেই বাহবা দেয়। সবাই জানে তার বিজনেস মাইন্ড , সব কিছুই করতে পারে। এবার একটি রিপোর্ট সামনে এসেছে সেখানে দেখা গেছে ভারতের বিভিন্ন তাবড় তাবড় সংস্থা এখন জিওর পেছনে, তার মধ্যে আইটিসি, বৃহত্তম ব্যাঙ্ক এস বি আই, এইচ ডি এফ সি, ইনফোসিসের মতো সংস্থা।

এখন রিলায়েন্স জিওর বর্তমান বাজারের মূল্য ৪.৪ লক্ষ কোটি টাকা। যা অনেক কোম্পানি এখনও সেই পর্যন্ত পৌছাতেই পারে নি। জিও এসেছে ২০১৬ সালে, তিনবছর বয়স এই সংস্থার, আর এতো কম দিনের মধ্যেই এই এতো উন্নতি।জিওর কারণে এখন রিলায়েন্স সংস্থার বাজার মূল্যও বেড়ে গেছে অনেকটাই। আগের থেকে ৫২%।

গতকাল খবর এসেছে ভারতীয় মুদ্রায় ৪৩,৫৭৪ কোটি টাকা দিয়ে রিলায়েন্স জিওর ৯.৯% শেয়ার কিনে নিয়েছে মার্ক জুকারবার্গের সংস্থা ফেসবুক। আর এর পরেই তরতর করে বেড়ে গেছে জিওর বাজার মূল্য। এখন সেই কারণেই রিলায়েন্স সবাইকে পেছনে ফেলে সবার আগে, দেশের বৃহত্তম ব্যাঙ্ক এস বি আই তাকেও ছাড়িয়ে গেছে, আইটিসি, ইনফোসিস, এইচ ডি এফ সি সব সংস্থাকে পেছনে ফেলে দিয়েছে।

এখন অনেকেই আশায় বুক বেঁধেছে , শেয়ার বাজার কিছু না হলেও চাঙ্গা তো হবে এর জন্য। কারণ শেয়ার বাজারের নিরিখে এখন দেশের পঞ্চম তম সংস্থা হয়ে গেলো জিও। কিন্তু সেটা পাকাপাকি ভাবে হবে শেয়ার বাজার খোলার পর। এখন ভোডাফোন, এয়ারটেল সবার থেকে জিওর বাজার মুক্য অনেকটাই বেশী। ভোডাফোনের থেকে ৩৯ গুণ ও এয়ারটেলের থেকে ৬০% বেশী।।