এবার ধরা পড়লো এক ভুয়ো তৃণমূল নেতা! যে নাকি তৃণমূল দলের সদস্যই নন

16
এবার ধরা পড়লো এক ভুয়ো তৃণমূল নেতা! যে নাকি তৃণমূল দলের সদস্যই নন

ভুয়ো আইএএস অফিসার, ভুয়ো সিআইডি, ভুয়ো ভিজিলেন্স কমিশনারের পরে এবার ধরা পড়লেন ভুয়ো তৃণমূল নেতা। তৃণমূলের আভ্যন্তর থেকেই সম্প্রতি দীপ্ত নামের এমন এক নেতার খোঁজ পাওয়া গিয়েছে যিনি নাকি তৃণমূল দলের সদস্যই নন। তৃণমূলের দলীয় সূত্রে খবর রাজ্য সরকারি কর্মচারী ফেডারেশনের নামে নকল প্যাডও ছাপিয়ে ফেলেছেন ওই ব্যক্তি। তপসিয়ার তৃণমূল ভবনের ঠিকানাও দেওয়া রয়েছে ওই নোটপ্যাডে।

তৃণমূল কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে ইতিমধ্যেই বিষয়টি সম্পর্কে অবগত করানো হয়েছে। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে পাঠানো চিঠির একটি কপি পার্থ চট্টোপাধ্যায়কেও পাঠানো হয়েছে। কারণ তৃণমূলের যে ফেডারেশনের নামে নকল প্যাড ছাপানো হয়েছে সেই ফেডারেশনের চেয়ারম্যান তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়। রাজ্য সংগঠনের কনভেনর দিব্যেন্দু রায়ের অভিযোগ ওই প্যাডে তার নামের বদলে জনৈক দীপ্তেন্দুর নাম উল্লেখ রয়েছে।

সেই ব্যক্তির নামেই সরকারি কর্মচারীদের বিভিন্ন কাজ করে দেওয়ার নির্দেশ পাঠানো হয়েছে এই প্যাড ব্যবহার করে। দেখা গিয়েছে যে ওই ব্যক্তি নাকি মুর্শিদাবাদে কর্মরত এক সরকারি কর্মীর বদলির নির্দেশও দিয়েছেন এমন জাল প্যাড ব্যবহার করে। তৃণমূলের অভিযোগ অনেক বড় একটি চক্রান্ত চলছে। এই চক্রান্তের বিরুদ্ধে এখনই উপযুক্ত পদক্ষেপ নেওয়া প্রয়োজন বলে জানাচ্ছেন দিব্যেন্দু রায়।

তৃণমূল সাংসদ মিমি চক্রবর্তীকে ভুয়ো টিকা দেওয়া ভুয়ো আইএস অফিসার দেবাঞ্জন দেবের গ্রেফতারির পর এমনিতেই অস্বস্তিতে তৃণমূল। তার উপর আবার হালফিলে ভুয়ো সিআইডি এবং ভুয়ো ভিজিলান্স কমিশনের অফিসারও ধরা পড়েছেন। এখন আবার দেখা যাচ্ছে তৃণমূলের অভ্যন্তরেই জাল ব্যক্তির ছড়াছড়ি।