এবার মশা নিধনে এক যুগান্তকারী ছত্রাক আবিষ্কার করল বাঙালি গবেষক

34
এবার মশা নিধনে এক যুগান্তকারী ছত্রাক আবিষ্কার করল বাঙালি গবেষক

করোনা নামক মহামারী আমাদের মন থেকেই সরিয়ে দিয়েছে ডেঙ্গু নামক অন্য এক মহামারীর আতঙ্ক। গত দুই বছর আগেও আমরা আতঙ্কিত হয়ে থাকতাম বর্ষাকাল এলেই। চারিদিকে মশার প্রাদুর্ভাব আমাদের চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়াত। বহু মানুষ ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছেন। মশা তাড়ানোর জন্য আমরা সাধারণত ব্যবহার করে বিভিন্ন ধুপ অথবা মশা তাড়ানোর কয়েল। তবে মশার বংশ ধ্বংস করে দিতে পারে এক ছত্রাক, যার কথা এর আগে আপনি কখনো শোনেননি।

ডেঙ্গু, ম্যালেরিয়া, ফাইলেরিয়া রোগ সৃষ্টিকারী মশা, যে সমস্ত মশা আমাদের জীবনহানি করতে পারে, সেই সমস্ত মশার লার্ভাকে মুহুর্তের মধ্যে শেষ করে দেবে এই ছত্রাক। নাম মাত্র ডোজ দিলে মাত্র আধ ঘণ্টার মধ্যেই মশার বংশ নির্বংশ হয়ে যাবে। এই যুগান্তকারী আবিষ্কারটি করেছেন রহড়া রামকৃষ্ণ মিশন বিবেকানন্দ সেন্টেনারি কলেজ এর এক গবেষক এবং অধ্যাপক ডক্টর স্বপন ঘোষ।

গবেষণা পত্রটি বিশ্ববন্দিত নেচার পত্রিকার সাইন্টিফিক রিপোর্টে প্রকাশিত হয়েছে। ম্যাজিক ফাঙ্গাসের নাম হল ট্রাইকোডার্মা অ্যাসপেরেলাম। কৃষিকাজে কীটনাশক ব্যবহৃত এই ছত্রাকটি অন্য রোগ সৃষ্টিকারী ছত্রাক এবং ব্যাকটেরিয়াকে দমন করতে পারে খুব সহজেই। এই নিয়ে বছর চারেক ধরে একইভাবে কাজ করে চলেছেন স্বপন বাবু এবং তার ছাত্ররা।

স্বপন বাবু প্রথম দেখিয়েছেন, ছত্রাকটি যে কোন মশার লার্ভা মারতে সিদ্ধহস্ত। এর কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই, পাশাপাশি একটি পরিবেশ বান্ধব। ইতিমধ্যেই মুর্শিদাবাদ, মেদিনীপুর, পুরুলিয়া এবং উত্তর ২৪ পরগনা সহ রাজ্যের বিশেষ কিছু জায়গায় পর্যবেক্ষণ চালানো হয়েছে। কোন তাপমাত্রায়, কত পিএইচ মশার বীজতলা তৈরির জন্য আদর্শ, তা খুঁজে বার করা হয়েছে। একটি স্ট্যান্ডার্ড মার্কার তৈরি করা হয়েছে এবং আঁতুড়ঘরে ব্যবহার করে পাওয়া গেছে দারুণ সাফল্য।

চলুন জেনে নেওয়া যাক কি করে এটি কাজ করে। প্রথমে ছত্রাকের রেনু মশার লার্ভার গায়ে আটকে যায়। মশার গায়ে আটকানোর জন্য ছত্রাক এক ধরনের প্রোটিন তৈরি করে। আটকে যাওয়া ছত্রাক অঙ্কুরিত হওয়ার পর একটি নল গজিয়ে ওঠে যা থেকে বেরিয়ে আসে কিছু রাসায়নিক এবং তাই কাইটেজ প্রটিয়েজ নামে দুটি উৎসেচক। এরাই লার্ভার দেওয়াল ভেঙে ভেতরে ঢুকে পড়ে এবং তার প্রতিরোধ ব্যবস্থার ক্ষমতাকে শেষ করে দেয়। এরাই হল লার্ভার মূল ঘাতক।

স্বপন বাবুর পর্যবেক্ষণ, লার্ভা নিধনে সবথেকে বেশি কার্যকরী হল ছত্রাক নিঃসৃত ৭ যৌগের সম্মিলিত রাসায়নিক যা মাত্র ৩০ মিনিটে শেষ করে দিতে পারে মশার ডিম্বাণুকে। সম্পূর্ণ ছত্রাক ব্যবহার করলে অবশ্য দুই থেকে তিন দিন সময় লাগবে। একফোঁটা ছত্রাক রেণু ই যথেষ্ট শত্রু নিধন করার জন্য।