জনমানব হীন সমুদ্র সৈকতে আজও অপলক চোখে তাকিয়ে এই পুরনো কামান

6
জনমানব হীন সমুদ্র সৈকতে আজও অপলক চোখে তাকিয়ে এই পুরনো কামান

বছরের পর বছর একাই দাঁড়িয়ে সে, কিন্তু তার মুখে বিন্দুমাত্র নেই কোনও অভিযোগ, বিরক্তি। সে যেনো কারও আসার অপেক্ষায় একমনে সেই দিকেই অপলক চেয়ে। একেবারে জনমানব হীন সমুদ্র সৈকতে এইভাবে বছরের পর বছর দাঁড়িয়ে থাকা অনেকটা যেনো রহস্যময়। এখানে কার কথা বলা হচ্ছে হয়তো আপনারা বুঝতে পারছেন না। এখানে বলা হচ্ছে বিশাল কামানের ছবি। যার গায়ে আছে বিভিন্ন নানা নকশা করা।

বৃদ্ধ অতিকায় বিশাল কামান সমুদ্রের নোনা জলে একেবারে ক্ষতবিক্ষত। পুয়ের্তো রিকোর কুলেব্রা দ্বীপে অবস্থান তার। যারা প্রকৃতিকে ভালোবাসে তাদের কাছে এই নির্জন দ্বীপ সত্যিই মনোমুগ্ধকর। আর তার সাথে এই রহস্যময় কামানের উপস্থিতি আনন্দ যেনো আরও বাড়িয়ে তোলে অনেকটাই। কামানের বয়স যেই সেই নয়, একেবারে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়কার।

যখন থেকে এই দ্বীপ স্পেন আমেরিকার হাতে তুলে দেওয়া হয় তখন থেকেই দ্বীপে বোমা নিক্ষেপের জন্য কামানটিকে নিয়ে আসা হয়। ইতিহাসবিদেরা জানিয়েছেন, প্রচুর পরিমাণে যন্ত্রপাতি নিয়ে আসা হত দ্বীপে। অনুশীলনের জন্য কয়েক দশক ধরে বোমা নিক্ষেপের অনুশীলন সব কিছুই করে হয়েছিল। কিন্তু সেখানে বসবাস করা মানুষদের এই ধরনের কার্যকলাপ কোনোভাবেই পছন্দ হচ্ছিল না।

আর এর পরেই স্থানীয়রা নৌসেনার বিরুদ্ধে শুরু করে দেয় বিদ্রোহ। টানা ৫ বছর এই আন্দোলন চলতে থাকে, তার পরে গিয়ে ১৯৭৫ সালে দ্বিপ ছেড়ে চলে যায় নৌসেনারা। কিন্তু সেই কামানকে রেখে যায় সেখানেই। বছরের পর বছর ধরে এখানেই সে ঠায় দাঁড়িয়ে। একটা সময় যেখানে মানুষ আতঙ্কের জন্য এড়িয়ে চলত, সেটাই এখন ব্যবসার জন্য একটি অন্যতম স্থানে পরিণত হয়ে উঠেছে।