শীতলকুচি কান্ডে এই প্রথম তাদের রিপোর্ট তুলে ধরলো সিআইডি

18
শীতলকুচি কান্ডে এই প্রথম তাদের রিপোর্ট তুলে ধরলো সিআইডি

একুশের বিধানসভা নির্বাচনের চতুর্থ দফায় কোচবিহারের শীতলকুচি কান্ডকে কেন্দ্র করে উত্তাল হয়ে উঠেছিল রাজ্য রাজনীতি। ভোট চলাকালীন ওই স্থানে ৪ জন সাধারণ নাগরিকের মৃত্যু হয় সিআইএসএফের গুলিতে। এর পরেই কার্যত বিজেপি এবং তৃণমূলের সংঘাত নতুন মাত্রা পায়। এই প্রসঙ্গে সিআইডি রিপোর্ট এই প্রথম তাদের রিপোর্ট তুলে ধরলো। সেই রিপোর্টে উল্লেখিত বিষয়বস্তু নিয়ে শুরু হয়েছে নতুন বিতর্ক।

সম্প্রতি সিআইডি তরফ থেকে যে রিপোর্ট পেশ করা হয়েছে, সেই রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে যে ঐদিন ওইখানে বাইরে গণ্ডগোল হলেও বুথের দরজা ভেদ করে গুলি ভিতরে প্রবেশ করেছিল! বাইরে যে গোলাগুলি চলেছিল, সেখান থেকে একটি গুলি এসে লাগে ঘরের ব্ল্যাকবোর্ডে। সিআইডির এমন রিপোর্টের পরিপ্রেক্ষিতে নড়েচড়ে বসেছে ফরেন্সিকের ব্যালেস্টিক টিম।

কিভাবে ঘরের দরজা ভেদ করে ঘরের মধ্যে গুলির প্রবেশ করতে পারে সেই নিয়ে আপাতত কাটাছেঁড়া করার জন্য সোমবার শীতলকুচিতে যাবেন সংশ্লিষ্ট বিভাগের আধিকারিকেরা। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য একুশের বিধানসভা নির্বাচনের প্রেক্ষাপটে রাজ্যে হিংসার ঘটনা এড়াতে কেন্দ্রীয় সেনাবাহিনীকে মোতায়েন করা হয়েছিল রাজ্যজুড়ে। ঘটনার দিন ওই স্থানে উপস্থিত ছিলেন সিআইএসএফ জওয়ানরা।

তবুও ঘটে যায় অনভিপ্রেত ঘটনা। ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিজেপি এবং তৃণমূল কার্যত একে অপরকে দোষারোপ করতেই ব্যস্ত থাকে। যে চারজনের মৃত্যু হয়েছে, ময়নাতদন্তে তাদের তিনজনের শরীরের গুলি পাওয়া গেলেও অবশ্য একজনের শরীরে পাওয়া গিয়েছিল স্প্লিন্টার। সিআইএসএফের বন্দুক থেকে স্প্লিন্টার কিভাবে বের হয়? এই নিয়ে উঠেছে প্রশ্ন।