বলিউডে ক্যারিয়ার শুরু করার জন্য যে কঠিন পরিস্থিতির সন্মুখীন হতে হয়েছিল এই নায়িকাদের

5
বলিউডে ক্যারিয়ার শুরু করার জন্য যে কঠিন পরিস্থিতির সন্মুখীন হতে হয়েছিল এই নায়িকাদের

কাস্টিং কাউচ, শব্দটি বলিউড অভিনেত্রী কাছে খুবই একটি সাধারণ শব্দ। ৯০% বলিউড অভিনেত্রীকে নিজের ক্যারিয়ার শুরু করার জন্য কখনো না কখনো প্রযোজক-পরিচালকদের কাছ থেকে সঙ্গমের প্রস্তাব পেতে হয়েছে। কোন কোন অভিনেত্রী এই বিষয়টিকে অভিনয় জগতের একটি অংশ হিসেবেই দেখেন, কেউ কেউ আবার তাদের সম্মুখে প্রতিবাদ করেন এই নিয়মের।

আসুন জেনে নিন, সেই তালিকাভুক্ত থাকা কিছু নায়িকাদের নাম।

কঙ্গনা রানাওয়াত: চিরকালই স্পষ্টবাদী নায়িকা বলে পরিচিত এই অভিনেত্রী প্রথম যখন বলিউডে পা রেখেছিলেন, তখনই তিনি এক পরিচালকের কাছ থেকে এরকম প্রস্তাব পেয়েছিলেন। কিন্তু সেই পরিচালককে মুখের উপর না বলে দিয়ে সেখান থেকে বেরিয়ে যান তিনি।

সানি লিওন: নীল ছবির জগতের রানী বলা যায় তাকে। নীলছবির জগতের একছত্র শাসক হবার পর যখন তিনি বলেন ইন্ডাস্ট্রিতে পা দিয়েছিলেন, তখন তাকে ও একাধিক কুপ্রস্তাবের সম্মুখীন হতে হয়েছিল। যেহেতু তিনি নীল ছবির নায়িকা ছিলেন, তাই তার দিকে এমন কুপ্রস্তাব ছুড়ে দেওয়াটা খুবই স্বাভাবিক বলে মনে করেছেন প্রযোজক থেকে পরিচালক সকলে।

তিস্কা চোপড়া: এই অভিনেত্রীকে বারবার এমন শর্ত দেওয়া হয়েছিল। অভিনেত্রীর মতে, এটাই হলো একমাত্র গোপন শর্ত বলিউডের।

শার্লিন চোপড়া: এই অভিনেত্রীর মধ্যে, প্রযোজক এবং পরিচালক দের কাছে ডিনার হচ্ছে একটি কোড শব্দ। এটি বলা মানে বুঝে নিতে হবে যে অভিনেত্রীকে সঙ্গমের প্রস্তাব দেয়া হচ্ছে। এরকম প্রস্তাব তিনি একাধিকবার পেয়েছেন একাধিক মানুষের কাছ থেকে।

পায়েল রহগী: মি টু নিয়ে সরব হওয়া এই অভিনেত্রী ও জানিয়েছেন যে, বলিউডে অভিনয় করা কালীন তাকে এক পরিচালক অশ্লীল প্রস্তাব দিয়েছিলেন, তাকে বহুবার স্পর্শ করার চেষ্টা করা হয়েছিল।

মমতা কুলকার্নি: নব্বইয়ের দশকে যে কোনো পুরুষের মনে ঝড় তুলে দেওয়া এই অভিনেত্রী “চায়না গেট” ছবির সময় এমন একটি পরিস্থিতির শিকার হয়। “চায়না গেট” ছবির শুটিংয়ের সময় তাকে শোয়ার প্রস্তাব দিয়েছিলেন।

সূর্ভীন চাওলা: সবেমাত্র ক্যারিয়ার শুরু করতে যাওয়া এই দক্ষিণী অভিনেত্রী কেও শোয়ার প্রস্তাব দিয়েছিলেন একজন দক্ষিণী পরিচালক।

কালকি কোয়েচলিন: অসাধারণ অভিনয় দক্ষতা থাকা সত্ত্বেও তাকে একজন প্রযোজক ডেটিংয়ের জন্য ডেকে পাঠিয়েছিলেন। তবে তিনি না যাওয়ায় সেই প্রযোজক তাকে দ্বিতীয়বার ডেকে পাঠাননি।