অভাবে স্বভাবে দেহব্যবসায় নাম জড়িয়েছে বলিউডের এই পাঁচ অভিনেত্রীর

42
অভাবে স্বভাবে দেহব্যবসায় নাম জড়িয়েছে বলিউডের এই পাঁচ অভিনেত্রীর

একটি সিনেমার জগতে যেমন গ্ল্যামার আছে অপরদিকে আছে অন্ধকার। ইন্ডাস্ট্রির বহু অভিনেতা অভিনেত্রীরা নানা অসামাজিক কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়েছেন। আজকে এই বিষয় নিয়ে একটু আলোচনা করব। বলিউডে দেহব্যবসায় নাম জড়িয়েছে কোন ৫ জন অভিনেত্রীর তাই দেখব।

‘বীণারানি’ চরিত্রটি তামিল ধারাবাহিকের। এই নামটি দর্শকদের কাছে অতি পরিচিত একটি নাম। ২০১৮ সালে তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠে, মধুচক্র কাণ্ডের। চেন্নাইয়ের পানায়ূড়ের একটি রিসর্টের থাকাকালীন চেন্নাইয়ের পুলিশ তাকে হাতেনাতে গ্রেপ্তার করে। তারপরে জানা যায় দরিদ্র পরিবারের মেয়েদের অভিনয় সুযোগ করে দেওয়ার নাম করে তিনি ওই মেয়েদের দিকে মধুচক্র চালাতেন।

অভিনেত্রী শার্লিন চোপড়া। ‘কামসূত্র থ্রি ডি’ ছবিতে অভিনয় করছিলেন। এই ছবিটি মুক্তি পাওয়ার আগে অভিনেত্রী ঘনিষ্ঠ মুহূর্তের একটি ছবি ভাইরাল হয়। তখনই তিনি এই প্রজেক্ট থেকে নিজেকে সরিয়ে নেন। অভিনেত্রী জানিয়েছেন সিনেমায় ডাক পাওয়ার জন্য তাকে অনেক মানুষেরই বিছানায় যেতে হয়েছে। সিনেমায় ডাক না পেলে তিনি পয়সা কোথা থেকে ইনকাম করবেন সেই জন্যই তাকে অনেকেরই শয্যারসঙ্গী হতে হয়েছিল।

২০০৩ সালে মাকড়ি ছবির জন্য শিশুশিল্পী হিসেবে জাতীয় পুরষ্কার পেয়েছিলেন শ্বতা বসু। ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বর মাসে তার বিরুদ্ধেও মধুচক্রের অভিযোগে ওঠে। তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তখন শ্বেতার একটি বিবৃতি থেকে জানা যায় যে তিনি নাকি অভাবের কারণে এই চক্রের জড়িয়ে পড়েছেন। সংবাদমাধ্যমে এই বিবৃতি প্রকাশ হওয়ার পর অভিনেত্রী জানান যে তার যে বিবৃতি সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে সেটা ভুয়ো।

পাকিস্তানের অভিনেত্রী আরশি খানের বিরুদ্ধে মধুচক্রের অভিযোগে উঠলে তিনি কখনই সেই অভিযোগ স্বীকার করেননি। তিনি জানিয়েছিলেন অকারণ তাঁকে হেনস্থা করা হচ্ছে। তিনি সংবাদমাধ্যমকে জানান, পুণেতে শো করতে এসে একটি হোটেলে গেছিলেন তিনি। সেখানে রাত পৌনে একটার দিকে ক্রাইম ব্রঞ্চের দশ জন অফিসার এসে তার রুম নক করতে থাকে। অভিনেত্রীর মতে তিনি একজন পাকিস্তানি মানুষ বলে তাকে এই ধরনের হেনস্থা করা হয়েছে। এছাড়াও তিনি বলেছেন মিথ্যা ঘটনা কে চাপা দেওয়ার জন্য পুলিশ নাকি তার কাছে পনেরো লক্ষ টাকা দাবি করেছেন। পুলিশের তরফে এই অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে এবং জানানো হয় যে তাদের কাছে আরশি এবং তাঁর এজেন্টের কথাবার্তার সম্পূর্ণ কল রেকর্ড রয়েছে। অবশেষে আরশিকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

অভিনেত্রী দীপ্তি নাভালের বিরুদ্ধে যৌন ব্যবসায় জড়িত থাকার অভিযোগ উঠলেও তিনি বলেন এটি তার নামে মিথ্যা অভিযোগ রটানো হচ্ছে।

কখনো ক্যারিয়ারের স্বার্থে, কখনো অভাবের তাড়নায় এইরকম বিভিন্ন নায়িকাদের দেহ ব্যবসার কাজে জড়িত থাকতে হয়েছে। যখনই এই ধরনের ঘটনা জনসমক্ষে আসে তখন প্রশাসন একটু তৎপর হয় তারপরে আবার যেই এই অভিযোগগুলোর আলো নিভে যেতে থাকে তখন আবার সব কিছুই আগের মত হয়ে যায়।