উচ্চ শিক্ষিত হয়েও উপার্জনের পথ নেই, স্বেচ্ছামৃত্যুর আবেদন জানিয়ে মুখমন্ত্রীকে চিঠি এক যুবকের

7
উচ্চ শিক্ষিত হয়েও উপার্জনের পথ নেই, স্বেচ্ছামৃত্যুর আবেদন জানিয়ে মুখমন্ত্রীকে চিঠি এক যুবকের

চাকরির দাবি নিয়ে ইতিপূর্বে এই রাজ্য থেকে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে বহু অভিযোগ উঠেছে। এবার সেই দাবি এক নতুন মাত্রা পেল। মুর্শিদাবাদের সামশেরগঞ্জ থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দরবারে পৌঁছল এক আবেদন বার্তা, যে আবেদন বার্তায় স্বেচ্ছামৃত্যুর আবেদন জানিয়েছেন এক যুবক! তার দাবি, উচ্চ শিক্ষিত হয়েও পরিবার প্রতিপালনের জন্য তিনি কোনো উপার্জনের পথ খুঁজে পাননি। তাই মুখ্যমন্ত্রীর কাছে তার আবেদন, তাকে স্বেচ্ছামৃত্যুর অনুমতি দেওয়া হোক!

এমন ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই বিভিন্ন মহলে রীতিমতো শোরগোল পড়ে গিয়েছে। মুর্শিদাবাদের প্রত্যন্ত অঞ্চল গুলির মধ্যে অন্যতম সামশেরগঞ্জ। এখানে যোগাযোগ ব্যবস্থা অত্যন্ত অনুন্নত। ব্যবসার তেমন কোনো বিশেষ সুযোগও নেই। এরকমই একটি পিছিয়ে পড়া এলাকার বাসিন্দা শাম মহম্মদ। তার পরিবারে রয়েছে তার বৃদ্ধ বাবা-মা, অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী, এক কন্যা সন্তান এবং পাঁচ ভাই।

এই বড় পরিবারের মুখে দু’বেলা দু’মুঠো অন্ন তুলে দিতে হিমশিম খাচ্ছেন শাম। উপার্জনের জন্য একটি ইন্টারনেট ক্যাফে খুলেছেন তিনি। তবে সেখান থেকে যে আয় হচ্ছে তাতে তার সংসার চলছে না। নিজের অবস্থার কথা জানিয়েছে ইতিপূর্বে প্রশাসনের থেকে সাহায্য প্রার্থনা করেছিলেন তিনি। জেলাশাসক থেকে শুরু করে প্রশাসনের সর্বস্তরে তার আবেদন পৌঁছেছে। কিন্তু তাতে লাভ কিছুই হয়নি। তাই শেষমেষ খোদ মুখ্যমন্ত্রীর কাছে তিনি স্বেচ্ছামৃত্যুর আবেদন করে বসেছেন।

মুখ্যমন্ত্রীর কাছে তার করুণ আর্তি, শিক্ষিত হয়েও উপার্জনের উপায় খুঁজে না পেয়ে তিনি কার্যত মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছেন। বেকারত্বের এই জ্বালা তিনি আর সহ্য করতে পারছেন না। তাই বাধ্য হয়েই মুখ্যমন্ত্রীর কাছে স্বেচ্ছামৃত্যুর আবেদন জানাচ্ছেন তিনি। সামনেই বিধানসভা নির্বাচন। সেই নির্বাচনের প্রেক্ষাপটে এই বেকার যুবকের এহেন আবেদন পত্র স্বভাবতই রাজ্য শাসকদলের অস্বস্তি বাড়িয়েছে। পাশাপাশি রাজ্যের বেকারত্বের সমস্যাও আরও একবার উসকে দিয়েছে।