সহানুভূতির ভিত্তিতে চাকরি পাওয়ার সুযোগ রইলো ব্যাংক গুলিতে

18
সহানুভূতির ভিত্তিতে চাকরি পাওয়ার সুযোগ রইলো ব্যাংক গুলিতে

এবার সহানুভূতির ভিত্তিতে চাকরি পাওয়ার সুযোগ রইলো ব্যাংক গুলিতে। এমনই নির্দেশিকা জারি করেছে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলি কারণ কেন্দ্রীয় অর্থ মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকেও এ বিষয়ে সবুজ সংকেত দেয়া হয়েছে। ভারত সরকারের সচিব বিজয় শংকর তিওয়ারী এই সম্বন্ধে একটি চিঠিও দিয়েছেন ইন্ডিয়ান ব্যাঙ্কস অ্যাসোসিয়েশনকে, যেখানে বলা হয়েছে ব্যাংকে কর্মরত অবস্থায় যদি কোন ব্যক্তি অকালেই মারা যান তাহলে সেক্ষেত্রে তাঁর ছেলে সে চাকরি পাওয়ার সুযোগ থাকবে।

তবে ছেলেকে অবশ্যই সেই চাকরির জন্য যোগ্য হতে হবে। তবে কেন এমন হঠাৎ নির্দেশিকা জারি হলো? কারণ করোনার সময়ে অনেক মানুষই তাদের পরিবারের সদস্যকে হারিয়েছে। সে ক্ষেত্রে সহানুভূতির ভিত্তিতেই বারংবার বিবাহিত ছেলেকে চাকরি দেবার জন্য দাবি করা হয়। এই প্রচেষ্টা অনেক দিন ধরে চালিয়ে আসছিল ইন্ডিয়ান ব্যাঙ্ক অ্যাসোসিয়েশন, যাতে বিবাহিত পুত্র অকালে প্রয়াত বাবার স্থানে চাকরি পেতে পারে।

এমনকি ব্যাংক অ্যাসোসিয়েশন গুলি ২০২২ সালের ২০ শে জুন সহানুভূতিশীল নিয়োগের জন্য পরামর্শ প্রদান করেছিল। শেষ পর্যন্ত তাদের সেই প্রচেষ্টাকে কেন্দ্রীয় অর্থ মন্ত্রণালয় সম্মতি প্রদান করেছে এবং এই নির্দেশে যথেষ্টই খুশি ব্যাংক কর্মীরা কারণ এর আগে প্রয়াত কর্মীর পুত্রকে চাকরি দেওয়ার কোন বন্দবস্ত কিছুই ছিল না, তবে পুত্রকেও অবশ্যই যোগ্য হতে হবে চাকরির জন্য।এবার অবিলম্বেই নিয়ম কার্যকর হতে চলেছে এবং এই নিয়ম কার্যকরী হলে উপকৃত হবে পরিবারের সদস্যরা।

দীর্ঘকালীন এই প্রচেষ্টা এতদিনে সফল হতে চলেছে যে কারণে একপ্রকার খুশি সংগঠনগুলো। ব্যাঙ্ক অফ বরোদার কর্মকর্তারা জানিয়েছেন অর্থ মন্ত্রণালয়ে এতদিনে সঠিক পদক্ষেপ নিয়েছে এবং তাঁরা এটিকে সঠিক সিদ্ধান্ত বলেই মনে করছেন।