প্রেমিকার সাথে দেখা করতে গিয়ে পরিবারের হাতে ধরা পড়ায় লজ্জায় পাকিস্তান পালাল যুবক

10
প্রেমিকার সাথে দেখা করতে গিয়ে পরিবারের হাতে ধরা পড়ায় লজ্জায় পাকিস্তান পালাল যুবক

বর্ডার পেরোনোর গল্প আমরা অনেক শুনেছি। সিনেমাতে অথবা বাস্তবে বর্ডার পেরিয়ে বিপদে পড়ার গল্প আমরা অনেক শুনেছি। অনেক সময় বছরের পর বছর এমনকি সারা জীবন প্রতিবেশী দেশের জেলে থাকতে হয়েছে এমন মানুষ রয়েছে এই পৃথিবীতে। তেমনি আরো একটি ঘটনা ঘটল সম্প্রতি করাচিতে।

বছর 19 এর একজন যুবক রাজস্থানের বারমের থানার অন্তর্গত সজ্জন কা পীর গ্রামের বাসিন্দা। গত বছরের নভেম্বর মাসের 4 তারিখ ভারতের সীমানা পেরিয়ে সে পাকিস্তানে চলে গেছে বলে জানা গিয়েছে। কিন্তু হঠাৎ করে এমন কি হলো, যার জন্য সীমানা পেরিয়ে যেতে হলো তাকে? আসলে ঘটনাটিতে জড়িয়ে রয়েছে একটি প্রেমের কাহিনী।

সূত্রের খবর অনুযায়ী, ওই যুবক তার গ্রামের একটি মেয়ে সঙ্গে প্রেমের বন্ধনে আবদ্ধ ছিল। প্রেমিকার বাড়িতে দেখা করতে গিয়ে পরিবারের হাতে ধরা পড়ে যায় সে। মেয়েটির পরিবার তাকে পুলিশে ধরিয়ে দেবার ভয় দেখাতে শুরু করে। তখন তড়িঘড়ি পালাতে গিয়ে সে বর্ডার পার করে ঢুকে পড়ে পাকিস্তানে

যুবকটি নিখোঁজ হওয়ার কয়েক দিনের মধ্যেই থানায় মিসিং ডায়েরি করে তার পরিবারের লোকজন। প্রাথমিক তদন্ত করতে গিয়ে জানতে পারা যায় যে, হয়তো ওই যুবক সীমানা পেরিয়ে পাকিস্তানে চলে গেছে। এমন একটি অনুমান করার কারণ হলো, ছেলেটির বাড়ি সীমানার খুব কাছে। তড়িঘড়ি পালাতে গিয়ে এমন কাণ্ড ঘটে যেতে পারে।

পুলিশের অনুমান মিলে যায় পরিবারের অনুমানের সঙ্গে। জানা যায় যে, যুবক পরিবারের সঙ্গে কথা বলেছে পাকিস্তান থেকে। এই ঘটনা জানাজানি হয়ে যাবার পর স্থানীয় থানার পুলিশ বিএসএফ এর সাথে কথা বলেন। তারা পাকিস্তানের সঙ্গে এই ব্যাপারে কথা বললেও কোনো রকম সুরাহা পাওয়া যায়নি।

বহুবার এক সঙ্গে বৈঠক করার পর পাকিস্তান জানান যে, জনৈক যুবককে পাকিস্তানের সিন্ধ প্রদেশের একটি জেলে রাখা হয়েছে। ওই যুবকের সন্ধান পাওয়া গেল এখনও পর্যন্ত তাকে বাড়িতে ফিরিয়ে আনা যায়নি। পাক বিদেশমন্ত্রক জানিয়েছেন যে, এই ব্যাপারে তাদের দেশের আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। কতদিন পরে ছেলেটি বাড়িতে ফিরতে পারবে, তা নিয়ে এখনো উদ্বিগ্ন তার বাড়ির লোকজন।