ভূপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ১০০০০ ফুট উচ্চতায় তৈরি হল বিশ্বের দীর্ঘতম হাইওয়ে সুড়ঙ্গ “অটল টানেল”

6
ভূপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ১০০০০ ফুট উচ্চতায় তৈরি হল বিশ্বের দীর্ঘতম হাইওয়ে সুড়ঙ্গ

বিশ্বের দীর্ঘতম হাইওয়ে সুড়ঙ্গ “অটল টানেল” একেবারে তৈরি। ভূপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ১০০০০ ফুট উচ্চতায় অবস্থিত এই টানেলটি তৈরি হওয়ার ফলে মানালি এবং লেহের মধ্যের দূরত্ব প্রায় ৪৬ কিলোমিটার কমে গেছে। এর ফলে, মানালি থেকে লেহ পৌঁছাতে এবার থেকে চার ঘণ্টা কম সময় লাগবে। উল্লেখ্য, এই টানেলটি নির্মাণ করার পরিকল্পনা গ্রহণের পর তা বাস্তবায়িত করার জন্য প্রাথমিকভাবে ৬ বছর সময় নেওয়া হয়েছিল। তবে তা সম্পন্ন করতে প্রায় ১০ বছর সময় লেগে গেল।

“অটল টানেল” নির্মাণ প্রকল্পের চিফ ইঞ্জিনিয়ার কেপি পুরুষোত্তম জানিয়েছেন, এই সুড়ঙ্গ পথটি পুরোপুরি সিসিটিভি দিয়ে মুড়ে দেওয়া হয়েছে। প্রতি ৬০ মিটার অন্তর একটি করে সিসিটিভি বসানো হয়েছে বলে জানালেন তিনি। তবে টানেল তৈরি করার কাজ খুব একটা সহজ ছিল না বলেই জানিয়েছেন চিফ ইঞ্জিনিয়ার। ওই উচ্চতায় টানেল তৈরি করতে গিয়ে বেশ কিছু কঠিন পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে হয়েছে নির্মাণ কর্মীদের।

কারণ, রোটাং পাসে কাজ করার জন্যবছরে কেবল চার থেকে পাঁচ মাস সময় পাওয়া যায়। বাকি সময়টা ঐ জায়গায় এত বেশি ঠান্ডা থাকে যে কাজ করার অনুকূল পরিবেশ পাওয়া যায় না। তবে টানেলটি তৈরি হয়ে যাওয়াতে এবার থেকে সারা বছরেই মানালি থেকে লেহতে যাতায়াত করা যাবে। টানেলটি ১০.৫ মিটার লম্বা এবং দু’দিকে ১ মিটার করে ফুটপাথ রাখা হয়েছে বলে জানা গেছে। পাশাপাশি সুড়ঙ্গ পথের প্রতি ৫০০ মিটার দূরত্বে মূল সুড়ঙ্গ থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সুড়ঙ্গ রাখা হয়েছে।

শুধু তাই নয়, সুড়ঙ্গ পথে যদি কোনোভাবে আগুন লাগে, তাহলে যাত্রীদের সুরক্ষার জন্য রয়েছে অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থাও। আপদকালীন পরিস্থিতিতে যাত্রীদের যাতে দ্রুত সুড়ঙ্গ থেকে বের করে আনা যায় সেই ব্যবস্থাও রয়েছে। পাশাপাশি, এই সুড়ঙ্গ ব্যবহার করে লাদাখে অবস্থিত ভারতীয় সেনাবাহিনীর কাছে দ্রুত খাদ্য সামগ্রী এবং যুদ্ধের সরঞ্জাম পৌঁছে দেওয়া সম্ভব হবে বলে জানা গেছে।