বিশ্বের সবথেকে বৃহত্তম পাখি পেলাগঅরনিথিডি বাস করত দক্ষিণ মহাসাগরীয় অঞ্চলেঃ সাইন্টিফিক রিপোর্ট

6
বিশ্বের সবথেকে বৃহত্তম পাখি পেলাগঅরনিথিডি বাস করত দক্ষিণ মহাসাগরীয় অঞ্চলেঃ সাইন্টিফিক রিপোর্ট

আদিম যুগের পশু-প্রানীদের আকার আয়তন যে বর্তমান যুগের তুলনায় অত্যধিক বেশি ছিল তা এর আগে প্রকাশিত বহু জার্নাল থেকে আমরা জানতে পেরেছি। তবে সম্প্রতি “সাইন্টিফিক রিপোর্ট” নামক একটি জার্নালে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে জানা গেল, এযাবৎকালীন বিশ্বের সবথেকে বৃহত্তম পাখি একসময় দক্ষিণ মহাসাগরীয় অঞ্চলে রাজত্ব করতো। “পেলাগঅরনিথিডি” সম্প্রদায়ের অন্তর্ভুক্ত এই দৈত্যাকার পাখি আজ থেকে প্রায় ৬০ মিলিয়ন বছর পূর্বে পৃথিবীতে বসবাস করতো।

গবেষকদের দাবি অনুযায়ী, এই প্রজাতির পাখির ডানার দৈর্ঘ্যই ছিল প্রায় ২১ ফিটের কাছাকাছি। পাশাপাশি, এদের চঞ্চুর দৈর্ঘ্যও ছিল বৃহৎ। করাতের মতো ধারালো দাঁত দিয়ে তারা সমুদ্রে বসবাসকারী প্রাণীদের শিকার করে জীবন ধারণ করতো। ১৯৮০ সালের মাঝামাঝি সময়ে আন্টার্টিকা উপদ্বীপীয় এলাকার উত্তরের দিকে অবস্থিত সেইমোর দ্বীপ থেকে এই সর্ব বৃহৎ পক্ষীর ফসিল অথবা দেহাবশেষ আবিষ্কৃত হয়।

এই ফসিল গুলিকে উদ্ধার করার পর ইউসি বার্কলেতে অবস্থিত ইউসি মিউজিয়ামের গবেষণার জন্য সংরক্ষিত রাখা হয়। এই ফসিল গুলির মধ্যে ছিল পাখির পায়ের হাড়, যার উপর গবেষণা চালিয়ে বিজ্ঞানীরা এই সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছেন যে, এই পাখি প্রায়ই ৫০ মিলিয়ন বছর পূর্বে পৃথিবীতে ছিল। ওই মিউজিয়ামের এক পড়ুয়া তথা প্রতিবেদনের প্রধান লেখক ক্লোয়েস জানিয়েছেন, পৃথিবী থেকে ডাইনোসর অবলুপ্ত হওয়ার পরেই এই বৃহদাকার পাখির উদ্ভব হয়েছিল।

এই পাখি একসময়ে সমুদ্রে রাজত্ব করতো বলেই মনে করছেন তারা। গবেষণার রিপোর্ট থেকে জানা গেছে, এই পাখি পৃথিবীর বুকে প্রায় ৬০ মিলিয়ন বছর ধরে রাজত্ব করেছে। এর আগে এই প্রজাতির শেষ যে পাখিটির ফসিল পাওয়া গিয়েছিল, তার আনুমানিক বয়স প্রায় ২.৫ মিলিয়ন বছর। অর্থাৎ এই বৃহদাকার পাখি বরফ যুগ শুরু হওয়ার প্রাক মুহূর্ত অব্দি পৃথিবীতে টিকে ছিল।