আয় বাড়াতে ২০২১ এর বাজেটে অতিরিক্ত কর লাগু করার কথা বিবেচনা করছে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রক

10
আয় বাড়াতে ২০২১ এর বাজেটে অতিরিক্ত কর লাগু করার কথা বিবেচনা করছে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রক

করোনা মহামারীর পরিস্থিতিতে বিগত প্রায় দশ মাস ধরেই দেশের অর্থনীতির গ্রাফ নিম্নমুখী। এমতাবস্থাতেও বিভিন্ন খাতে সরকারের খরচ বেড়েই চলেছে। সেই খরচের কিছুটা সুরাহা করতে এবার তাই ২০২১ সালের বাজেটে অতিরিক্ত কোভিড-১৯ সেস বসানোর কথা বিবেচনা করছে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রক। উচ্চ আয়করের আওতায় আসেন এমন করদাতাদের উপরেই কার্যত এই অতিরিক্ত কর লাগু করার কথা ভাবা করা হচ্ছে।

তবে এই বর্ধিত কর সেস নাকি সার চার্জ হিসেবে নেওয়া হবে সে সম্পর্কে অবশ্য এখনো কোনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়নি। বিষয়টি এখনও কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রকের বিবেচনাধীন রয়েছে। তবে চলতি বছরের বাজেট ঘোষণার আগেই অবশ্য এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে বলে জানানো হয়েছে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, আগামী ফেব্রুয়ারি মাসের ১তারিখেই কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন ২০২১-২২ অর্থবছরের বাজেট পেশ করতে চলেছেন।

বিশিষ্ট সংবাদ সংস্থা “ইকোনমিক্স টাইমস” সূত্রে খবর, উচ্চ হারের আয়করদাতাদের উপর সামান্য কিছু সেস বসানো হতে পারে। এছাড়াও কিছু পরোক্ষ সেস বসানোর ভাবনা-চিন্তাও চলছে। পাশাপাশি, কেন্দ্রের আয় বাড়াতে পেট্রলিয়াম এবং ডিজেলের মতো আমদানি শুল্ক বেশি এমন কিছু পণ্যের উপর সেস লাগু করা যায় কিনা তাও খতিয়ে দেখছেন অর্থ মন্ত্রকের অধিকর্তারা।

এই সেস বাবদ অতিরিক্ত যে আয় হবে তা পুরোপুরি কেন্দ্রীয় কোষাগারের অন্তর্ভুক্ত হবে। রাজ্য সরকারকে এ বাবদ কোনো টাকা প্রেরণ করা হবে না বলেই প্রাথমিকভাবে জানানো হয়েছে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, আগামী ১৬ই জানুয়ারি থেকে কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে দেশবাসীকে বিনামূল্যে করোনার ভ্যাকসিন প্রদান কর্মসূচী শুরু হচ্ছে। এই পরিকল্পনা বাস্তবায়িত করতে অন্তত ৬০ হাজার কোটি টাকা থেকে ৬৫ হাজার কোটি টাকা খরচ হবে কেন্দ্রীয় সরকারের। অতএব সেই অনুযায়ী বাজেট প্রস্তাবিত হতে চলেছে আগামী পয়লা ফেব্রুয়ারি, এমনটাই অনুমান করা হচ্ছে।