খুনের অভিযোগে ইরানের কুস্তি চ্যাম্পিয়ন নাবেদ আফকারিকে মৃত্যুদণ্ড দিল তেহেরান সরকার

6
খুনের অভিযোগে ইরানের কুস্তি চ্যাম্পিয়ন নাবেদ আফকারিকে মৃত্যুদণ্ড দিল তেহেরান সরকার

বিশ্বের সমস্ত দেশের আবেদন খারিজ করে অবশেষে শনিবার সকালে ইরানের কুস্তি চ্যাম্পিয়ন নাবেদ আফকারিকে মৃত্যুদণ্ড দিল তেহেরান সরকার। নাবেদ আফকারির বিরুদ্ধে এক নিরাপত্তা কর্মীর খুনের অভিযোগ ছিল। ২০১৮ সালে সরকার বিরোধী মিছিলে অংশগ্রহণ করেন নাবেদ আফকারি। সেই সময়ই ওই নিরাপত্তা কর্মীকে কুপিয়ে খুন করেন তিনি। খুনের অভিযোগে ইরানের প্রশাসন গ্রেপ্তার করে তাকে।

অবশ্য, খুনের অভিযোগ অস্বীকার করে নাবেদ আফকারি বরাবরই দাবি করে এসেছিলেন তাকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো হচ্ছে। এমনকি তিনি দাবি করেন, তাকে জোর করে খুনের অভিযোগ স্বীকার সংক্রান্ত মিথ্যে বয়ান লিখিয়ে নিয়েছে প্রশাসন। প্রখ্যাত কুস্তিগীরের আইনজীবীও দাবি করেছিলেন, জেলের মধ্যে অকথ্য অত্যাচার চালানো হচ্ছে নাবেদ আফকারির উপর। তবে ইরানের আদালত অবশ্য তাদের অভিযোগ মানতে চায়নি।

এদিকে, প্রখ্যাত কুস্তিগীরের মৃত্যুদণ্ড রদের উদ্দেশ্যে বিশ্বের বিভিন্ন মহলের তরফ থেকে ইরান সরকারের উপর চাপ দেওয়া হচ্ছিল। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পও ইরান সরকারের কাছে নাবেদ আফকারিকে মৃত্যুদণ্ড না দেওয়ার আবেদন জানিয়েছিলেন। তবে সমস্ত আবেদন খারিজ করে দিয়ে, শনিবার সকালেই তার মৃত্যুদন্ড কার্যকর করল ইরান প্রশাসন।

আজ সকালে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমে এই খবর প্রকাশিত হতেই চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে নেটিজেনদের মধ্যে। কুস্তি চ্যাম্পিয়নকে মৃত্যুদণ্ড দেয়ার ঘটনা কোনোভাবেই স্বাভাবিকভাবে মেনে নিতে পারছেন না কুস্তি প্রেমীরা। এই সংবাদে ক্ষুব্ধ বিশ্বের ৮৫ হাজার ক্রীড়াবিদ ইতিমধ্যেই আন্তর্জাতিক মঞ্চে থেকে ইরানকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছেন।