৪০ মিনিটের অস্ত্রোপচারে শিশুর শরীর থেকে বাদ দেওয়া হল লেজ

19
৪০ মিনিটের অস্ত্রোপচারে শিশুর শরীর থেকে বাদ দেওয়া হল লেজ

ছোট্ট শিশুর শরীরে লেজের মত উপবৃদ্ধি বেড়েই চলেছিল। সে যত বড় হচ্ছে, তার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বড় হচ্ছে তার লেজ। মনুষ্য প্রজাতিতে লেজ থাকাটা বড় একটা স্বাভাবিক ব্যাপার নয়। তবুও এ পর্যন্ত চিকিৎসাশাস্ত্রে প্রায় ৪০টি শিশুর শরীরে লেজের মত উপবৃদ্ধি দেখা গিয়েছে বলে জানাচ্ছেন চিকিৎসা বিজ্ঞানীরা। তেমনই এক শিশু ছিল ফারহান। জন্মের সাথে সাথেই তার শরীরে ছিল লেজের মতো উপবৃদ্ধি।

সন্তানের শরীরে লেজ দেখে স্বভাবতই উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছিলেন বাবা-মা। সে যত বড় হচ্ছিল তার লেজটিও ততই বড় হচ্ছিল। তা দেখে তারা আরো বেশি ভীত হয়ে পড়েন। বহু চিকিৎসকের দ্বারস্থ হয়েও এই সমস্যার সমাধান মিলছিল না। তবে শেষমেষ সমস্যার সমাধান করলেন পিজি হাসপাতালের চিকিৎসকেরা। অপারেশন করে শিশুর শরীর থেকে লেজ সরিয়ে নেওয়া সম্ভব হয়েছে।

পিজি হাসপাতালের পেডিয়াট্রিক সার্জনরা মঙ্গলবার ৪০ মিনিটের অস্ত্রোপচারের পর শিশুর শরীর থেকে লেজ বের করে দেওয়া সম্ভব হয়েছে। চিকিৎসা বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, মানুষের শরীরে সাধারণত দুই প্রকারের লেজ দেখতে পাওয়া যায়। সিউডো টেল এবং ট্রু টেল। ট্রু টেলে সাধারণত সুষুম্নাকাণ্ড বর্ধিত হয়ে লেজে পরিণত হয়। যেমনটা বাঁদর এবং হনুমানদের ক্ষেত্রে দেখা যায়।

এছাড়াও সিউডো টেল সাধারনত মাংসপেশি এবং রক্ত নিয়ে তৈরি হয়। এরমধ্যে হাড় থাকে না। এই শিশুটির ক্ষেত্রেও তেমনটাই হয়েছিল। শিশুটির লেজের মধ্যে হাড় ছিল না দেখে স্বস্তি পেয়েছিলেন চিকিৎসকেরাও। অপারেশন করে তার পায়ুছিদ্রের ঠিক উপরিভাগ থেকে লেজটি সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।