ছোট করে পালিত হবে শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান! মন্ত্রিসভায় আসতে চলেছে একাধিক নতুন মুখ

9
ছোট করে পালিত হবে শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান! মন্ত্রিসভায় আসতে চলেছে একাধিক নতুন মুখ

একইসঙ্গে তার দল জিতে গেল কিন্তু তিনি হেরে গেলেন, এমন ঘটনা বোধহয় রাজনৈতিক ক্ষেত্রে খুবই বিরল। বিজেপির সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্নকে রীতিমতো ধূলিসাৎ করে দিয়ে তাকে পত্রপাঠ বিদায় করে দিলো বাংলার মানুষ। শুধুমাত্র শুভেন্দু অধিকারীর কাছে নামমাত্র ভোটে হেরে না গেলে বাংলার মানুষ যে শুধুমাত্র তার দিদি কেই চায়, তা আরো একবার স্পষ্ট হয়ে গেল।

তবে এতো আনন্দের মধ্যেও আনন্দ দেখানো যাচ্ছে না শুধুমাত্র মহামারীর জন্য। গতকাল অর্থাৎ রবিবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন যে, এখন আমাদের প্রধান কাজ হল করোনা র সাথে মোকাবিলা করা। এবারের মন্ত্রিসভায় ব্যাপক রদবদল হতে পারে বলে ধারণা রাজনৈতিক মহলের একাংশের। বিশ্বাসযোগ্য বিধায়ক এবং নতুন কিছু মুখ যোগ দিতে পারে মমতার মন্ত্রিসভা তে।

সোমবার জয়ী এবং পরাজিত সকল প্রার্থীকে নিয়ে বৈঠকে বসেছে তৃণমূল নেত্রী। এইদিন বৈঠক থেকেই আগামী দিনের কর্মসূচি নিয়ে বার্তা দেবেন দলকে দলনেত্রী। সূত্র থেকে খবর পাওয়া গেছে যে, এইদিন তৃণমূল ভবনে বৈঠকে কলকাতা এবং সংলগ্ন জেলা নির্বাচিত বিধায়করা যোগ দেবেন। বাকিরা ভার্চুয়াল ভাবে অংশগ্রহণ করবেন। এরপর সন্ধে সাতটায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজভবনের যাবেন এবং সরকার গঠন করার দাবি জানাবেন।

সম্ভবত ৭ মে শপথ নিতে পারেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং তার দলের কর্মীরা। এইদিন বৈঠকে আগামী মন্ত্রিসভার সম্পর্কে আভাস দিতে পারেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একাধিক নতুন মুখকে টিকিট দিতে পারেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, সেই রকম আশা করছেন অনেকেই। এমনকি টালিগঞ্জের যে সমস্ত তারকার জিতে এসেছেন, তারাও জায়গা পেতে পারেন মন্ত্রিসভায়।

তবে বিপুল যায় এর পরেও মানুষকে করোনা নিয়ে সচেতন করতে ভোলেন নি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বর্তমান পরিস্থিতির জন্য ছোট করেই রাজভবনের শপথ গ্রহণ করার অনুষ্ঠান হবে। মমতা সাফল্যে উচ্ছ্বসিত গোটা দেশের বিরোধীদের কোনো নেতাই প্রায় শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে আসতে পারবেন না। তবুও তার মধ্যেই ছোট করে পালন করা হবে শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান।