ঘুরে দাঁড়াচ্ছে শেয়ারবাজার! বিনিয়োগের বদলে ভালো রিটার্ন পাচ্ছেন বিনিয়োগকারীরা

20
ঘুরে দাঁড়াচ্ছে শেয়ারবাজার! বিনিয়োগের বদলে ভালো রিটার্ন পাচ্ছেন বিনিয়োগকারীরা

করোনা পরিস্থিতিতে লকডাউনের সময় শেয়ারবাজারে যেন রীতিমতো ধ্বস নেমেছিল। তবে সময় যত এগিয়েছে, ঘুরে দাঁড়িয়েছে শেয়ারবাজার। এখন শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ করলে তার বদলে ভালো রিটার্ন পাচ্ছেন বিনিয়োগকারীরা। এই যেমন এক লাখ টাকা বিনিয়োগ করলে ১২ বছর পর আপনি ৩.৫ কোটি টাকার মালিক হয়ে যেতে পারেন। শেয়ার বাজারে বাজাজ ফিনান্সের পরিসংখ্যান ও ইতিহাস অন্তত তেমনটাই ইঙ্গিত দিচ্ছে।

করোনার প্রথম ঢেউয়ে যে ক্ষতি হয়েছিল ধীরে ধীরে তা পূরণ করে আবার শীর্ষ শিখরে উঠে এসেছে শেয়ারবাজার। আগের তুলনায় অনেক খানি চাঙ্গা হয়ে উঠেছে শেয়ারবাজার। শেয়ারবাজারে বাজাজ ফিনান্সের রমরমা বেশ ভালো। শেয়ার বাজারে এক সময় বাজাজ ফিনান্সের প্রতিটি শেয়ারের দাম ছিল ১৭.৬৪ টাকা। বর্তমানে তা প্রায় ৬,১৭৭.০৫ টাকায় গিয়ে পৌঁছেছে। অতএব বিগত ১২ বছরে শেয়ারবাজারে বাজাজ ফিনান্সের গুরুত্ব বেড়েছে ৩৪৯ শতাংশ।

ন্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জে তালিকাভুক্ত হওয়ার সময় ২০০২ সালের ৫ জুলাই বাজাজ ফিনান্সের প্রতিটি শেয়ারে দাম ছিল মাত্র ৫.৭৫ টাকা। ২০০৮ সালে বিশ্বব্যাপী আর্থিক মন্দা দেখা দেওয়ার কারণে প্রতিটি শেয়ারের দাম ৪৫ টাকার স্তরে নেমে এসেছিলো। পরে অবশ্য বাজার কিছুটা স্থিতিশীল হওয়ায় শেয়ারের দাম ক্রমশ বাড়তে থাকে এবং বর্তমানে দেখা যাচ্ছে ১২ বছরে বাজাজ ফিনান্সের শেয়ারের দাম প্রায় ৩৫০ গুন বেড়ে গিয়েছে।

শেষ ছ’মাসে ২৫ শতাংশেরও বেশি টাকা ফেরত পেয়েছেন বিনিয়োগকারীরা। যদি কেউ ছ’মাস আগে বাজাজ ফিনান্সে এক লাখ টাকা বিনিয়োগ করে থাকেন এবং সম্পূর্ণ সময় তিনি সেই শেয়ার চালিয়ে যান তাহলে ছ’মাসে তা বেড়ে দাঁড়াবে ১.২৫ লাখ টাকায়। ২০০৯ সালে ১ লক্ষ টাকা বিনিয়োগ করলে বর্তমানে তিনি তা বাবদ ৩.৫ কোটি টাকা ফেরত পাবেন। শেয়ারের দামের পাশাপাশি পাবেন শেয়ার ডিভিডেন্ডও। অর্থাৎ রাতারাতি লাখপতি থেকে কোটিপতি হওয়া কেউ আটকাতে পারবে নি।