স্ত্রী ছেড়ে যাওয়ার ক্ষোভে শশুর বাড়িতে সিদ কেটে চুরি করলেন জামাই

5
স্ত্রী ছেড়ে যাওয়ার ক্ষোভে শশুর বাড়িতে সিদ কেটে চুরি করলেন জামাই

স্ত্রী চলে গেছেন তালাক দিয়ে। রাগে দুঃখে ক্ষোভে দিশেহারা হয়ে গেছেন স্বামী। রাগের মাথায় নিয়ে নিলেন অভিনব একটি পদক্ষেপ। না, আত্মহত্যার রাস্তা বেছে নেয় নি তিনি, বরং শশুর বাড়িতে সিদ কেটে চুরি করেছেন তিনি। চোরাই পণ্যের মধ্যে ছিল একটি এলইডি টিভি এবং একটি ফ্যান।

তদন্তে নেমে পুলিশ ওই চোরকে থুরি ওই জামাইকে গ্রেফতার করে উদ্ধার করেন টিভি এবং ফ্যান। ঘটনাটি গত ৮ সেপ্টেম্বর গভীর রাতে ঘটেছে, বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার কিচক ইউনিয়নের চল্লিশচত্র গ্রামে। গ্রেফতার হওয়া ওই ছেলের নাম রিজ্জাকুল মন্ডল, তিনি ফরিদ মণ্ডলের ছেলে। একই গ্রামের বাসিন্দা তারা।

গত শুক্রবার বিকেলে পুলিশ রিজ্জাকুলকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠিয়েছেন। জিজ্ঞাসাবাদের সময় অভিযুক্ত জানায়, প্রায় ছয় মাস আগে একই গ্রামের মঞ্জু মিয়ার মেয়ের সঙ্গে বিয়ে হয় তার। এরপর মাঝে মাঝেই অশান্তি তৈরি হয় তাদের মধ্যে। অবশেষে বিরক্ত হয়ে শ্বশুরমশাই তালাকের মাধ্যমে মেয়েকে বাড়ি নিয়ে চলে যান। সেই থেকে খুব মনে পুষে রেখেছিলেন রিজাককুল। অবশেষে শ্বশুর বাড়িতে চুরি করার সিদ্ধান্ত নেন তিনি।

শশুরকে শায়েস্তা করতেই কার্যত শ্বশুর বাড়িতে চুরি করার পরিকল্পনা করেন প্রাক্তন জামাতা। গত ৮ সেপ্টেম্বর রাতের কোনো এক সময় শ্বশুরবাড়িতে গিয়ে সিঁদ কেটে ঘরে প্রবেশ করেছিলেন তিনি। শ্বশুরবাড়ি থেকে এলইডি টিভি এবং ফ্যান চুরি করে নিয়ে চলে যান তিনি। এর পরেই মঞ্জু মিয়া প্রাক্তন জামাতার বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।

এই ঘটনায় ৯ সেপ্টেম্বর বিকেলে জামাই রিজাককুল মন্ডল কে নিয়ে বাড়ি থেকে আটক করে পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদের পর নিজের অভিযোগ স্বীকার করে নেন তিনি। তার দেয়া তথ্য অনুযায়ী উদ্ধার করা হয় টিভি এবং ফ্যান, পরে তা ফিরিয়ে দেওয়া হয় গৃহকর্তার কাছে।

শিবগঞ্জ থানার ওসি সিরাজুল ইসলাম বলেন, ঋজ্জাকুলকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। চুরি যাওয়া সমস্ত জিনিস উদ্ধার করে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে গৃহকর্তার কাছে।