নিজেদের গ্রামের নাম উচ্চারণ করতে লজ্জা পান এই গ্রামের বাসিন্দারা

32
নিজেদের গ্রামের নাম উচ্চারণ করতে লজ্জা পান এই গ্রামের বাসিন্দারা

মাতৃভূমির নাম গর্বের সঙ্গে উচ্চারণ করাটাই দস্তুর। প্রত্যেকেই তাদের মাতৃভূমির প্রতি গর্ব অনুভব করেন। তবে সুইডেনের একটি গ্রামের বাসিন্দারা নিজেদের গ্রামের নাম উচ্চারণ করতে লজ্জা পান। গ্রামের নামের কারণে তাদের বেশ সমস্যা হয়। তারা এই নাম অন্য কোথাও উচ্চারণ করতে পারেন না। সোশ্যাল মিডিয়াতে তারা তাদের গ্রামের নাম ব্যবহার করতে পারেন না। কারণ সোশ্যাল মিডিয়ার সেন্সরশীপে আটকে যায় গ্রামের এই নাম।

সুইডেনের ‘ফাক’ গ্রামের বাসিন্দারা মহা সমস্যায় পড়েছেন। গ্রামের এমন নাম হওয়াতে তাদের বারবার অপ্রস্তুতিতে পড়তে হয়েছে। 1547 সালে গ্রামের এই নামকরণ করা হয়েছিল। অতএব বোঝা যাচ্ছে গ্রামের একটি ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপট রয়েছে। তবে গ্রামের লোকেরা গ্রামের নাম বদলানোর জন্য ক্যাম্পেইন শুরু করেছেন। 2007 সালে ফাকবাই গ্রামের বাসিন্দারা গ্রামের নাম বদল করার দাবি তুলেছিলেন। তবে গ্রামের নাম পরিবর্তন করা হয়নি।

সুইডেনের জাতীয় ল্যান্ড সার্ভে ডিপার্টমেন্ট এই গ্রামের নাম পরিবর্তন করতে গিয়ে সমস্যায় পড়েছে। তবে গ্রামবাসীরা জানিয়েছেন গ্রামের নাম যতদিন পর্যন্ত পরিবর্তন না করা হবে ততদিন তারা ক্যাম্পেইন চালিয়ে যাবেন। এই গ্রামের 11 টি পরিবার দাবি করেছেন গ্রামের নাম বলতে তাদের লজ্জা লাগে। স্থানীয় একটি টিভি চ্যানেলে এক বাসিন্দা জানিয়েছেন তাদের গ্রামটি খুব ভালো এবং শান্ত। গ্রামের সকলে এতে খুশি। তবে গ্রামের নাম নিয়ে রয়েছে সমস্যা।

সুইডেন কিংবা অন্য কোনো গ্রামের নাম বদলানোর জন্য জাতীয় ল্যান্ড সার্ভে ডিপার্টমেন্ট, জাতীয় হেরিটেজ বোর্ড, লোকো কথা সংস্থান নাম বদলানোর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। কোন স্থানের নাম বদল করার আগে ওই স্থানের ইতিহাস সম্পর্কে বিবেচনা করা হয়। যেহেতু এই গ্রামের ঐতিহাসিক গুরুত্ব আছে তাই সহজে গ্রামের নাম বদলানো যাচ্ছে না। তবুও গ্রামবাসীরা তাদের দাবী থেকে পিছপা হচ্ছেন না।