ভাতা না পেয়ে পুজো বয়কটের সিদ্ধান্ত নিলো সিউড়ির পুরোহিত সংগঠন

6
ভাতা না পেয়ে পুজো বয়কটের সিদ্ধান্ত নিলো সিউড়ির পুরোহিত সংগঠন

আমাদের রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দেশের মানুষের জন্য বিভিন্ন প্রকল্প তৈরি করেছেন। ছাত্র-ছাত্রীদের পাশাপাশি সাধারণ মহিলা এমনকি বৃদ্ধ-বৃদ্ধাদের জন্য বিভিন্ন প্রকল্প তৈরী করেছেন তিনি। এসমস্ত প্রকল্প আজও বর্তমান। এই প্রকল্পের মধ্যে অন্যতম হলো পুরোহিতদের জন্য তৈরি করা প্রকল্প, যেখানে পুরোহিতের ভাতা দেওয়ার ঘোষণা করেছিলেন তিনি।

কিন্তু এই তালিকায় নাম থাকা সত্ত্বেও পুরোহিত ভাতা পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ করেছেন সিউড়ির পুরোহিতের একাংশ। ইতিমধ্যেই তারা ভাতা না পাওয়ার অভিযোগ করে সোচ্চার হয়েছেন এবং এটাও দাবি করেছেন, ভবিষ্যতে যদি প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী ভাতা তারা না পান, তাহলে বৃহত্তর আন্দোলনের দিকে এগোবেন তারা। পাশাপাশি তারা এও জানিয়েছেন, পুজো থেকে শুরু করে শ্রাদ্ধা অনুষ্ঠান কোন কিছুতেই তারা অংশগ্রহণ করবেন না।

বুধবার বীরভূমের সিউড়ি শহরে বেশ কিছু পন্ডিত এই ব্রাহ্মণ ভাতার দাবি করে জমায়েত হন বীরভূম জেলা শাসকের কাছে। সেখানে তারা একটি স্মারকলিপি জমা দেন এবং আবেদন করেন যাতে দ্রুত এই সমস্যার সমাধান হয়ে যায়। স্মারকলিপি জমা দিতে আসা পুরোহিতদের মধ্যে অন্যতম অমল চক্রবর্তী বলেন, মুখ্যমন্ত্রীর থেকে আমরা আশা করেছিলাম ব্রাহ্মণ ভাতার। কিন্তু এক বছরের বেশি সময় হয়ে যাওয়ার পরেও এই ব্রাহ্মণ ভাতা থেকে একটি টাকাও আমরা পাইনি।

ইতিমধ্যেই জেলা সভাপতি, জেলাশাসক এবং অন্যান্য আধিকারিকদের দ্বারস্থ তারা হয়েছেন বারবার কিন্তু কোনো সুফল পাওয়া যায়নি। প্রত্যেক মাসে তাদের বলা হচ্ছে, আগামী মাসে দেওয়া হবে, কিন্তু সেই আগামী মাস এখনো এসে পৌঁছায়নি।
পুরোহিত দলের আরও এক প্রতিনিধি সৃজিত চট্টরাজ জানিয়েছেন, আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি, অবিলম্বে যদি আমাদের দাবি না মেনে নেওয়া হয় তাহলে আগামী সময়ে বিশ্বকর্মা পুজো থেকে শুরু করে দুর্গাপুজো, কালীপূজা থেকে শুরু করে জগদ্ধাত্রী পুজো, কোন পূজাতে সিউড়ি শহরের কোন পুরোহিত অংশগ্রহণ করবেন না। যেভাবে আমাদের বঞ্চিত করা হচ্ছে, এভাবে যদি আমরা পরেও বঞ্চিত হই, তাহলে আমরা কোন রকম অনুষ্ঠানে যোগদান করবো না। এই ভাবেই চলবে আমাদের প্রতিবাদ।