মেডিকেল কলেজে ভর্তি করাতে ঘুষ দিয়ে হাজতবাস হলো বাবা-মেয়ের

15
মেডিকেল কলেজে ভর্তি করাতে ঘুষ দিয়ে হাজতবাস হলো বাবা-মেয়ের

মেয়েকে মেডিকেল কলেজে ভর্তি করানোর জন্য নিট এক্সাম সলভার গ্যাংয়ের পাল্লায় পড়ে শেষ-মেষ টাকাও খোয়ালেন আবার পুলিসের জালে জড়িয়ে পড়ে হাজতবাস হলো বাবা-মেয়ের। মেয়েকে প্রথম সারির মেডিকেল কলেজে ভর্তি করানোর জন্য একটি কুখ্যাত গ্যাংকে 50 লক্ষ টাকা ঘুষ দিয়েছিলেন বাবা। অবশেষে বারাণসী পুলিশের জালে জড়িয়ে পড়লেন তিনি।

বারাণসী পুলিশের তদন্তে ত্রিপুরার ধোলাই জেলার বাসিন্দা গোপাল বিশ্বাস ধরা পড়েছেন। তিনি স্বীকার করেছেন প্রদীপ্ত ভট্টাচার্য এবং মৃত্যুঞ্জয় দেবনাথ নামের দুই ব্যক্তির সঙ্গে তিনি যোগাযোগ করেছিলেন মেয়েকে ডাক্তারিতে ভর্তি করানোর উদ্দেশ্যে। তার কাছ থেকে 50 লক্ষ টাকা চাওয়া হয়েছিল। তিনি তাতে সম্মত হন এবং টাকা দিয়ে দেন।

পুলিশের তদন্তে জানা গিয়েছে পরীক্ষার দিন যে ছাত্র-ছাত্রী গ্যাংকে টাকা দেবে তার হয়ে পরীক্ষায় বসবেন অন্য একজন। কোনও এক মেডিকেল পড়ুয়াই ক্লাস টুয়েলভ পাস ছেলে মেয়ের জায়গায় বসে পরীক্ষা দেবেন! তিনি অনায়াসেই পরীক্ষার প্রশ্নের উত্তর দিতে পারবেন এবং ওই পরীক্ষার্থী মেডিকেলে উত্তীর্ণ হয়েও যাবেন।

2021 সালে নিট পরীক্ষার সময় এই চক্রের কথা প্রকাশ্যে আসে। জুলি কুমারী নামের বেনারস হিন্দু ইউনিভার্সিটির ছাত্রী অন্য এক ছাত্রর হয়ে পরীক্ষা দিতে বসেছিলেন। তিনি ধরা পড়তেই এই চক্র সম্পর্কে জানাজানি হয়ে যায়। এই চক্রের সঙ্গে 25 জন ছাত্র-ছাত্রী জড়িত থাকতে পারে বলে অনুমান করা হচ্ছে। পুলিশ তদন্ত চালিয়ে এই চক্রের মূল পান্ডাকে খুঁজে বেড়াচ্ছে।